প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিচারব্যবস্থা সংস্কারে জুডিশিয়াল কমিশন গঠন করা হবে

শাহানুজ্জামান টিটু ও শিমুল মাহমুদ : বিএনপি ঘোষিত নির্বাচনী ইশতেহারে বিচার বিভাগ সম্পর্কে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন,সংবিধানের ১৬৬ অনুচ্ছেদ সংশোধন করে নিম্ন আদালতের নিয়ন্ত্রণ রাস্ট্রপতির হাত থেকে সুপ্রিম কোর্টের হাতে ন্যস্ত করা হবে। মামলার জট দূর করার জন্য যোগ্য বিচারক নিয়োগ এবং প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। বর্তমান বিচার ব্যবস্থা সংস্কারের জন্য একটি জুডিশিয়াল কমিশন গঠন করা হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে হোটেল লেক শোতে দলের নির্বাচনী ইশতেহারে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

ইশতেহারে বলা হয়, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করা হবে। বিএনপির নির্বাচনী ইশতেহারে মত প্রকাশের স্বাধীনতার উপরে গুরুত্ব দিয়েছে। তাদের ইশতেহারে বলা হয়েছে মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা হবে। সরকারের সাথে কোন বিষয়ের মত ভিন্নতা থাকলেও কারো কন্ঠরোধ করা হবে না। অনলাইন মনিটরিং তুলে দিয়ে জনগণকে আবাদে কথা বলার ও মত প্রকাশের সুযোগ দেয়া হবে।ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন অফিশিয়াল সেক্রেটস অ্যাক্ট সহ সকল প্রকার কালাকানুন বাতিল করা হবে। তথ্য অধিকার আইনে তথ্য প্রাপ্তি দ্রুততর করার জন্য বিদ্যমান বাধাসমূহ পুরোপুরি দূর করা হবে।মানুষের জীবনের মূল্য প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বিচার বই তো হত্যাকান্ড গুম খুন এবং অমানবিক শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অবসান ঘটানো হবে। বিশেষ ক্ষমতা আইন ১৯৭৪ বাতিল করা হবে।রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের যুক্তিসঙ্গত সমালোচনার অবাধ অধিকার থাকবে।

ইশতেহারে আরো বলেন, যুবকদের বেকার ভাতা দেয়া হবে। বিএনপির নির্বাচনী ইশতেহারে যুব নারী ও শিশুদের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কয়েকটি প্রস্তাবনা দিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে জাতীয় উন্নয়নে যুব নারী ও শিশুদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা, ২৫ বছর পর্যন্ত তরুণদের স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য ইউথ পার্লামেন্ট গঠন করা, দেশের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য বিএনপির সকল কর্মকাণ্ডে নারী সমাজকে প্রত্যক্ষভাবে সম্পৃক্ত করবে। এ প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে সকল বাধা অপসারণ করা হবে। এক বছর ব্যাপী অথবা কর্মসংস্থান না হওয়া পর্যন্ত যেটা আগে হবে শিক্ষিত বেকারদের বেকার ভাতা প্রদান করা হবে। এদের যৌক্তিক অর্থনৈতিক উদ্যোগে আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে।

রাজধানী হোটেল লাইভ শোতে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা দেয় বিএনপি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত