প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সেনাবাহিনী নামলে পরিস্থিতি পাল্টে যাবে!

বিভুরঞ্জন সরকার : সকালে পার্কে হাঁটতে গিয়ে হোচট খেলাম। না, পায়ে নয়, হোচট খেলাম একজনের কথায়। তিনি আমার পরিচিত। বললেন, এইবার সামাল দেন। আমি কিছু বুঝে ওঠার আগেই বললেন, সেনাবাহিনী মাঠে নামলেই পাল্টে যাবে ভোটের চিত্র।

আমি জানতে চাই, কোথায় পেলেন, এমন তথ্য?

তিনি বললেন, কেন, আপনি জানেন না? এটা তো নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারের কথা। তিনি গতকাল বলেছেন, নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বলে কিছু নেই। তবে তিনি মনে করেন, সেনাবাহিনী মাঠে নামলে পরিস্থিতি আশাব্যঞ্জকভাবে পাল্টে যাবে। তার মানে এখন পরিস্থিতি আওয়ামী লীগের অনুকূলে আছে, সেনাবাহিনী মাঠে নামলে সেটা বিএনপির অনুকূলে যাবে।

আমাকে ফ্যাল ফ্যাল করে চেয়ে থাকতে দেখে ভদ্রলোক আবার বলতে থাকেন, বিএনপির নেতারা এতোদিন যেমন বলেছেন, একজন নির্বাচন কমিশনারও তাই বলছেন। তার মানে তিনি বিএনপির হয়ে কথা বলছেন। তিনি বিএনপির লোক। বিএনপি যে বলে নির্বাচন কমিশন সরকারের হয়ে কাজ করছ সেটা যথার্থ নয়। অন্তত একজন বিএনপির হয়েও কাজ করছেন। তিনি বিএনপিকে তথ্য দিচ্ছেন বলেই হয়তো বিএনপি এতোদিন ধরে বলে আসছে নির্বাচনে তারাই জিতবে। প্রশাসনে নাকি বিএনপির আরো লোক আছে। তারা ঠিক সময়ে আসল রূপে আবির্ভূত হবেন।

আমি জানতে চাই, তার মানে সেনাবাহিনী বিএনপির পক্ষে ভূমিকা নেবে?

তিনি বলেন, মাহবুব তালুকদারের কথা শুনে কি তাই মনে হয় না? আমি ধন্ধে পড়ি। তাই তো। একটি সাংবিধানিক পদাধিকারী ব্যক্তি যখন বলেন, সেনাবাহিনী মাঠে নামলে পরিস্থিতি পাল্টে যাবে, তখন বিষয়টিকে হালকাভাবে নেয়া যায় কি?

সেনাবাহিনীকে সরকার তথা আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ হিসেবে দেখিয়ে ‘বিতর্কিত’ করার এটা কোনো সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনার অংশ নয় তো?

ভদ্রলোক আরো বললেন, ড. কামাল হোসেন বলেছেন, মরে গেলেও নির্বাচন বর্জন করবেন না। নিজে প্রার্থী না হয়েও তার এই দৃঢ় অবস্থান কোনো মহলের কোনো বিশেষ আশা-ভরসার কারণে নয় তো? কোনো প্রশ্নেরই জবাব আমি দিতে পারি না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত