প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির আরও উন্নত করতে হবে : এম. হারুন-অর-রশীদ

আমিরুল ইসলাম : নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি আরো উন্নত করতে হবে বলে মনে করেন সাবেক সেনাপ্রধান লে. জে.(অব.) হারুন-অর-রাশিদ বীর প্রতীক।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, সকল ভোটার যেনো ভোটকেন্দ্রে যেতে পারেন, ভোট দিতে পারে ও নিরাপদে যেনো তার গন্তব্যস্থানে পৌঁছাতে পারে সেরকম পরিবেশ  তৈরি করতে হবে আইশৃঙ্খলা বাহিনীকে। সেরকম পরিবেশ সৃষ্টি করতে না পারলে সাধারণ জনগণ ভোট কেন্দ্রে যাবেন না।

সাধারণ মানুষ চায় একটি সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অংগ্রশগ্রহণমূলক নির্বাচন হোক। সবাই যেনো তাদের ভোট দেওয়ার জন্য ভোটকেন্দ্রে যেতে সাহস পান। খুব শান্তিপূর্ণ পরিবেশ পান, যার যার পছন্দের প্রার্থীকে তার অত্যন্ত মূল্যবান ভোটটি দেওয়ার জন্য। নির্বাচনে এমন একটি সরকার ক্ষমতায় আসুক, যে সরকার জনগণের কথা চিন্তা করবে। মুক্তিযুদ্ধের যে আদর্শ আছে সেটা বাস্তবায়নের জন্য কাজ করবে।

নির্বাচনে শুধু রাজনৈতিক কর্মীদের অংশগ্রহণ থাকলেই হবে না। এর বাইরে লক্ষ লক্ষ ভোটার রয়েছে তারা যেনো ভোটকেন্দ্রে যেয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন। সাধারণ মানুষের  মনে এখনো সন্দেহ রয়েছে, নিরপেক্ষ ভোট হবে কিনা? সে সন্দেহ দূর করার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। নির্বাচনে কিছু প্রতিযোগিতা, কিছু কোন্দল থাকবেই। এটা চাইলেই বন্ধ করতে পারবে না। কথা হলো প্রতিযোগিতার মাঝখানে রেফারি আছে। এ রেফারির দায়িত্ব হচ্ছে নির্বাচন কমিশনের। তারা সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন না করলে যে খেলা হবে সে খেলার মাঠ সমান হবে না। তারপরও কথা থাকে, যারা যুদ্ধাপরাধীদের দলকে সমর্থন করছে তাদেরকে সাধারণ মানুষ সমর্থন করতে পারে না! একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আমি অবশ্যই বলবো, ‘যারা যুদ্ধাপরাধীর দলকে প্রতিষ্ঠিত করার দায়িত্ব নিয়েছে, সে মুক্তিযোদ্ধা হলেও তাকে আমি সমর্থন করবো না’।

এখনো এগারো দিন সময় আছে এর মধ্যে নির্বাচন কমিশনকে সাধারণ মানুষের মনে যে আস্থাহীনতা, সংশয়  ও ভয় জন্ম নিয়েছে সেটা দূর করতে হবে। মানুষের মনে আস্থা ফিরিয়ে নিয়ে আসতে হবে। তারা যেনো ভোট কেন্দ্রে যেতে পারেন এটাই আসল কথা বলে মনে করেন এই সাবেক সেনাপ্রধান।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত