প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মার্কিন ডিটেনশন সেন্টারে শিশুকন্যার মৃত্যু, তীব্র ক্ষোভ

লিহান লিমা: বাবার হাত ধরে মেক্সিকো সীমান্ত পেরিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছিলো গুয়েতেমালার সাত বছরের শিশুকন্যা জ্যাকলিন। সীমান্তেই ১৬০জন অভিবাসীসহ মার্কিন কাস্টমস অ্যান্ড বর্ডার প্রোটেকশন (সিবিপি) অফিসারদের হাতে ধরা পড়েন তারা। আটক করে ডিটেনশন সেন্টারে নিয়ে যাওয়ার আট ঘণ্টার মধ্যে প্রচন্ড জ্বরে আক্রান্ত হয় জ্যাকলিন। দ্য গার্ডিয়ান।

অসুস্থ শিশুটিকে এল পাসোর হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই তার মৃত্যু হয়। জ্যাকলিনের মৃত্যু মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিবাসন নীতিকে নতুন করে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। এর মধ্যে অভিবাসন অধিকার আইনজীবী ও কংগ্রেসের ডেমোক্রেট সদস্যরা এই ঘটনার জোর তদন্ত দাবি করেছেন। মার্কিন ডিটেনশন সেন্টারের পরিবেশ নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

সিনেটের সংখ্যালঘু দলের নেতা চেক শুমার বলেন, ‘সাত বছরের এক শিশু এভাবে মারা যেতে পারে না। হোমল্যান্ড সিকিউরিটিকে অবশ্যই এর জন্য দায়ভার দিতে হবে।’ হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভস এর স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেন, ‘সব আমেরিকান তার করুণ মৃত্যুতে শোকাহত। যার পরিবার কি না যুক্তরাষ্ট্রে তার ভবিষ্যতের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা দেখেছিলো।’ নিউ মেক্সিকোর সিনেটর ও টেক্সাসের ডেমোক্রেট কংগ্রেস সদস্যরা এর তদন্ত দাবি করেছেন। বর্ডার রাইটস সেন্টারের অ্যাডভোকেসি ম্যানেজার বলেন, ‘মার্কিন সীমান্তরক্ষী বাহিনী দায় এড়াতে চাইছে। শিশুটির মৃত্যুতে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হোক।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত