প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘নির্বাচন কমিশনকে পূর্ণাঙ্গ স্বাধীনতা দেয়া হবে’

‘নির্বাচন কমিশনকে পূর্ণাঙ্গ স্বাধীনতা দেয়া হবে’

শাহানুজ্জামান টিটু, শিমুল মাহমুদ ও সাব্বির আহমেদ : ক্ষমতায় আসলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতার ভারসাম্য আনবে বলে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করা হয়েছে। ঐক্যফ্রন্ট বলছে নির্বাচনকালীন সরকারের বিধান তৈরি করা নির্বাচন কমিশনকে পূর্ণাঙ্গ স্বাধীনতা দেয়াসহ অন্যান্য পদক্ষেপ নেওয়ার মাধ্যমে মুক্ত ভাবে মানুষের ভোটাধিকার প্রয়োগের অধিকার নিশ্চিত করা হবে।

সংসদে একটি উচ্চকক্ষ সৃষ্টি করা হবে। সবার সাথে আলোচনার মাধ্যমে ৭০ অনুচ্ছেদের পরিবর্তন আনা হবে। প্রধানমন্ত্রী এবং রাষ্ট্রপতির ক্ষমতার ভারসাম্য আনা হবে একটানা পরপর দুই মেয়াদের বেশি প্রধানমন্ত্রী থাকা যাবে না। সংসদের ডেপুটি স্পিকার বিরোধীদলীয় সংসদ এর মধ্য থেকে নির্বাচিত হবে। সংসদের স্থায়ী কমিটি উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সভাপতির পদ সংসদের প্রতিনিধিত্বকারী রাজনৈতিক বিরোধী দলের জন্য নির্দিষ্ট থাকবে। আইন এবং রাষ্ট্রনীতি প্রণয়ন এবং পর্যটক চালানো হয় হবে সংসদের মূল কাজ। সকল সাংবিধানিক পদে নিয়োগের জন্য সুস্পষ্ট আইন তৈরি করা হবে। নাইপাল ওয়েস্টিন কোর্টের বিচারপতিসহ সব নিয়োগের জন্য বিরোধীদলীয় সংসদ ও বিশিষ্ট নাগরিকদের সমন্বয়ে স্বাধীন কমিশন গঠন করা হবে।সকল সাংবাদিক সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানসমূহ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা হবে। বাংলাদেশের প্রাদেশিক সরকার প্রতিষ্ঠায় যৌক্তিকতা পরীক্ষার জন্য একটি সর্বদলীয় জাতীয় কমিশন গঠন করা হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত