প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সেনা অভ্যূত্থানমুক্ত সাল ২০১৮

সাইদুর রহমান : চলতি বছরের আর ক’দিন বাকি। গত একশত বছরের মধ্যে এ বছরই দ্বিতীয় বছর যেখানে সেনা অভ্যূত্থান অথবা অভ্যূত্থান চেষ্টার ঘটনা ঘটেনি। যদিও সারা বছর জুড়ে বিভিন্ন দেশে রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে। সর্বশেষ গত বছরের শেষের দিকে জিম্বাবুয়েতে সেনা অভ্যূত্থান হয়।
যুক্তরাষ্ট্রের ইনসাইডার বিজনেস জানিয়েছে, ২০১৮ সাল তুলনামূলক এক ধরণের স্থিতিশীল। এ কারণে ১০০ বছরের মধ্যে ২০১৮ দ্বিতীয় বছর,যেখানে সেনা অভ্যূত্থান হয়নি। ২০১৭ সালের নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবের বিরুদ্ধে সেনা অভ্যূত্থান হয়।

ইনসাইডার বিজনিস জানিয়েছে, ১৯৫০ সাল থেকে বিশে^ ৪৬৩ বার অভ্যূত্থান চেষ্টা হয়েছে। এরমধ্যে ২৩৩ বার অভ্যূত্থানকারীরা ক্ষমতা দখল করতে সক্ষম হয়েছে। অগণতান্ত্রিক এ পদ্ধতিতে ক্ষমতা দখলের কারণে অনেক দেশে গৃহযুদ্ধ সৃষ্টি হয়েছে। জনগন নিপীড়নের শিকার হয়েছে। অর্থনীতি প্রবৃদ্ধির চাকা বন্ধ হয়ে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের অন আর্থ ফিউচার (এক পৃথিবীর ভবিষ্যত) প্রতিষ্ঠানের অধীন ওএএফ রিসার্চ প্রগ্রাম মোতাবেক, ১৯৫০ সাল থেকে বিশে^র এক চতুর্থাংশ দেশ অভ্যূত্থানের শিকার হয়েছে। অভ্যূত্থান ও অভ্যূত্থান চেষ্টার কারণে প্রসিদ্ধির রেকর্ড গড়েছে ল্যাটিন আমেরিকার দেশগুলো। ১৯৫০ সাল থেকে ১৪২ বার অভ্যূত্থান চেষ্টা হয়েছে। ২০০০ সাল পর থেকে ৫ বার অভ্যূত্থান হয়েছে। সর্বশেষ হন্ডুরাসের প্রেসিডেন্ট ম্যানুয়েল জিলিয়াকে ২০০৯ সালে ক্ষমতাচ্যূত করে সেনাবাহিনী।
গত ১৮ বছর ধরে ৬২ বার অভ্যূত্থান চেষ্টা করে রেকর্ড গড়েছে এশিয়া। একই সময়ে আফ্রিকা মহাদেশে ৩৫ বার অভ্যূত্থান চেষ্টা হয়েছে। গড়ে বছরে দুইবার। এছাড়া অভ্যূত্থানের শিকার আফ্রিকার ১২ টি দেশে বছরে একাধিকবার অভ্যূত্থান হয়েছে। অন্যতম হলো বুরকিনা ফাসো, গিনিয়া বিসাউ।

১৯৫০ সালের পর ১৯৬৫ সালে সর্বাধিক অভ্যূত্থান চেষ্টা হয়েছে। এর সংখ্যা ১৯ বার। সফল হয়েছে ১২ বার। এরপরে রয়েছে ১৯৬৩ ও ১৯৭৫ সাল। এতে ১৬ বার অভ্যূত্থান চেষ্টা হয়েছে। সবচেয়ে কম অভ্যূত্থান হয়েছে ১৯৯৮, ২০১৩,২০১৬,২০১৭ সাল। এ বছরগুলোতে মাত্র একবার করে অভ্যূত্থান হয়েছে।
বর্তমান শতাব্দির শুরু থেকে সারা বিশে^র অভ্যূত্থান ও অভ্যূত্থান চেষ্টার তালিকা তুলে ধরা হলো: ২০০০ সালে একবার অভ্যূত্থান ও ৭ বার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০০১ সালে ৪ বার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০০২ সালে ২ বার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০০৩ সালে ৩ বার অভ্যূত্থান ও একবার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০০৪ সালে ২ বার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০০৫ সালে দুইবার অভ্যূত্থান।

২০০৬ সালে একবার অভ্যূত্থান ও তিনবার অভ্যূত্থান চেষ্টা।২০০৭ সালে কোনো অভ্যূত্থান চেষ্টা হয়নি। ২০০৮ সালে দুইবার অভ্যূত্থান ও একবার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০০৯ সালে দুইবার অভ্যূত্থান। ২০১০ সালে ১ বার অভ্যূত্থান ও দুইবার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০১১ সালে একবার অভ্যূত্থান ও একবার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০১২ সালে তিনবার অভ্যূত্থান ও তিনবার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০১৩ সালে একবার অভ্যূত্থান।
২০১৪ সালে তিনবার অভ্যূত্থান ও একবার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০১৫ সালে দুইবার অভ্যূত্থান। ২০১৬ সালে একবার অভ্যূত্থান চেষ্টা। ২০১৭ সালে একবার অভ্যূত্থান। সূত্র: আল-জাজিরা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত