প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সহিংসতা ঘটিয়ে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করা ঠিক হবে না : গোবিন্দ চক্রবর্তী

খায়রুল আলম : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. গোবিন্দ চক্রবর্তী বলেছেন, বর্তমান প্রেক্ষাপট বলে দিচ্ছে নির্বাচন হবে। সকল রাজনৈতিক দল প্রার্থী দিয়েছে, মার্কা পেয়েছে এবং প্রচারণায় নেমেছে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে নির্বাচনটি কেমন হবে।

এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপের সময় তিনি বলেন, আমাদের দেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতিতে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কিছু সহিংসতা থাকেই। নির্বাচনের আগে-পরে দুই একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটে। এবারও ব্যতিক্রম নয়। প্রতীক বরাদ্দের পরেই বিভিন্ন জায়গায় হামলা, সংঘর্ষ হচ্ছে। আমরা চাই না এমন ঘটনা ঘটুক। রাজনীতিতে পরিবর্তন আসুক এটিই কাম্য। নির্বাচন কমিশন সরকাকে বলতে হবে, এ ঘটনাগুলো দেখার জন্য। তবে এক ধরনের লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড তো তৈরি হয়েছে।  যার ফলে প্রার্থীরা তাদের প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। জনগণের কাছে যাচ্ছেন। ভোটারদের আকৃষ্ট করছেন। জোটগুলো যখন ম্যানিফেস্টো দিবে তখন প্রচারণা আরও জমে উঠবে। এ মুহূর্তে শঙ্কার বিষয় একটিই। নির্বাচন কেন্দ্রিক সহিংসতাগুলো।  আমাদের খেয়াল রাখতে হবে, ধীরে ধীরে আমরা রাজনৈতিক পরিপক্কতার দিকে যাচ্ছি। সকল রাজনৈতিক দলই পরিক্কতার পরিচয় দিয়েছে। তাই কোনো ধরনের সহিংসতা ঘটিয়ে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করা ঠিক হবে না। আমাদের দেশের বড় সমস্যা হচ্ছে নির্বাচন এলে সংখ্যালগিষ্ঠরা নির্যাতনে শিকার হয়। ইতিমধ্যে দুই একটি এমন ঘটনা ঘটেছে। ভবিষ্যতে যেনো এমন ঘটনাগুলো না ঘটে সে ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সতর্ক থাকতে হবে। আমরা আশা করছি, ত্রিশ তারিখ একটি সুষ্ঠু নির্বাচন পাবো। নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জনগণ তাদের রায় দেবে। রায়ের মাধ্যমে একটি সরকার গঠন হবে। যেই হারি-জিতি আমাদের মেনে নিতে হবে। তাহলে দেশের জন্য যেমন ভালো হবে, জনগণের জন্যও ভালো হবে। বিভিন্ন রকমের জরিপের মাধ্যমে দেখা যাচ্ছে, এখন পর্যন্ত শেখ হাসিনা সরকার অনেকটা এগিয়ে আছেন। তবে জরিপগুলো আওয়ামী লীগকেন্দ্রিক। সামনের দিনগুলো অনেক গুরুত্বপূর্ণ। নতুন প্রজন্মের অনেক ভোটার আছে। তারা কাকে ভোট দিবেন। ম্যানিফেস্টো কীভাবে আসবে, রাজনৈতিক দিক থেকে ভোটের কোনো ক্যালকুলেশন আছে কিনা। এগুলো হিসাবে ধরতে হবে। এসব হিসাবে ধরলে বোঝা যাবে কারা নির্বাচনে এগিয়ে আছেন। আপাতত যেভাবে ক্যালকুলেশন হচ্ছে, তাতে বর্তমান সরকারের এগিয়ে থাকার খবরটিই বেশি আসছে। ক্যালকুলেশন যাই হোক, আমরা একটি সুষ্ঠু নির্বাচন চাই।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত