প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গণতন্ত্র হত্যার  ফাঁদ পেতেছেন কামাল হোসেন : অধ্যাপক অপু উকিল

লিয়ন মীর : যুবমহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক অপু উকিল অভিযোগ করে বলেছেন, গণতন্ত্র হত্যা করতে  ড. কামাল হোসেন স্বাধীনতা বিরোধী ও সান্ত্রাসীদের সাথে নিয়ে ফাঁদ পেতেছেন। কিন্তু বিজয়ের মাসে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি কামাল হোসেনের ফাঁদে পা দেবে না।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, কামাল হোসেন বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথে চলার কথা বলে, মুখে গণতন্ত্রের কথা বলে, স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে জোট করে নির্বাচনে নেমেছেন। তিনি যদি সত্যিকার অর্থে গণতন্ত্রের পক্ষের শক্তি হয়ে থাকেন, স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি হয়ে থাকেন, তাহলে  কীভাবে যুদ্ধাপরাধীদের সাথে জোট করেছেন?

তিনি বলেন, ড. কামাল হোসেন নিজেকে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি বলছেন। আবার স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তির সাথে জোট করে নির্বাচনে নেমেছেন। কামাল হোসেনের দল গণফেরামের মার্কা ‘উদীয়মান সূর্য’। কিন্তু আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি তার উদীয়মান সূর্য ডুবিয়ে ভোট করতে নেমেছেন ধানের শীষে। এখন কামাল হোসেনের মার্কা ধানের শীষ, বিএনপির মার্কা ধানের শীষ, জামায়াতের মার্কা ধানের শীষ। মানে কামাল হোসেন, বিএনপি এবং যুদ্ধাপরাধী জামায়াতের মার্কা একই। তাহলে আর বলার অপেক্ষা রাখে না, কামাল হোসেন রাজাকারদের সাথে মিশে একাকার হয়ে গেছে। মুখে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কথা বলে, বিজয়ের মাসে স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তি জামায়াতের বিজয়ের জন্য ধানের শীষে ভোট চাইছেন কামাল হোসেন। এটা আসলে কামাল হোসেনের একটা ফাঁদ। মুক্তিযুদ্ধ এবং বঙ্গবন্ধুকে ফাঁদ হিসেবে ব্যবহার করছেন তিনি। কামাল হোসেন দেশের মানুষকে বোকা মনে করতে পারে কিন্তু দেশের মানুষ এতোটা বোকা নয়, মানুষ যা চোখে দেখছে তা বুঝতেও পারছে।

তিনি আরো বলেন, এই মাহান বিজয়ের মাসে একাত্তরের পরাজিত শক্তি, স্বাধীনতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের মানুষ ভোট দেবে না। মানুষ বিজয়ের মাসে ভোট দেবে বিজয়ের পক্ষে। স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি নৌকা মার্কায়। কেননা নৌকা হচ্ছে বিজয়ের মার্কা। স্বাধীনতার মার্কা। বিজয়ের মাসে বিজয়ের মার্কা নৌকায় ভোট দিয়ে দেশের জনগণ আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় এনে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার হাতে আবারো দেশ পরিচালনার দায়িত্ব তুলে দেবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত