প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

একাদশ জাতীয় নির্বাচন ও প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য

আক্তারুজ্জামান : আর মাত্র ১৫ দিন। ৩০ ডিসেম্বর দেশব্যাপী চলবে ভোট উৎসব। অনুষ্ঠিত হবে দেশের একাদশতম জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এই নির্বাচনকে সামনে রেখে ইতিমধ্যে সব ধরনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ। তর্ক-বিতর্ক শেষে সরকারী দল ও বড় দলগুলোর অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে একাদশ নির্বাচন। একাদশ নির্বাচনকে সামনে রেখে কিছু হালনাগাদ তথ্য জানা জরুরী।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা ৩৯টি। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জাসদ, বাসদ, গণফোরাম ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশসহ বড় সবগুলো দলই এসেছে। তবে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

মোট ভোটার : গত ১০ বছরে বাংলাদেশে ভোটার বেড়েছে ২ কোটি ৩১ লাখ ৩ হাজার ৪৭৭ জন। এ বছর মোট ভোটার ১০ কোটি ৪১ লাখ, ৯০ হাজার ৪৮০ জন। ২০১৪ সালের নির্বাচনে মোট ভোটার ছিল ৯ কোটি ১৯ লাখ ৬৫ হাজার ১৬৭ জন এবং ২০০৮ সালে ৮ কোটি ১০ লাখ ৮৭ হাজার ৩ জন।

নারী ভোটার : নারী ভোটারের সংখ্যাও এবার বেড়েছে। নারী ভোটারের মোট সংখ্যা ৫ কোটি ১৬ লাখ ৪৩ হাজার ১৫১ জন।
পুরুষ ভোটার : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পুরুষ ভোটারের সংখ্যা ৫ কোটি ২৫ লাখ ৪৭ হাজার ৩২৯ জন।
প্রথম ভোটার : দেশের প্রায় ২২ শতাংশ ভোটারের বয়স ১৮ থেকে ২৮ বছরের মধ্যে। এই তরুণদের বড় অংশ, প্রায় ১ কোটি ২৩ লাখ এবারই প্রথম ভোট দেবেন।

ভোটকেন্দ্র ও বুথের সংখ্যা : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটকেন্দ্রের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করেছে ইসি। এবার ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ৪০ হাজার ৬৫৭টি এবং ভোটকক্ষ (বুথ) ২ লাখ ৯ হাজার ৪১৮টি। দশম জাতীয় নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র ছিল ৩৭ হাজার ৭০৭টি ও ভোটকক্ষ ১ লাখ ৮৯ হাজার ৭৮টি।

ইভিএম কেন্দ্র : একাদশ জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের জন্য নির্ধারিত ছয় আসনের ভোটকেন্দ্রগুলোর প্রতিটি বুথে ৪৫০ জনের বেশি ভোটার না রাখতে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ঢাকা-৬, ঢাকা-১৩, চট্টগ্রাম-৯, রংপুর-৩, খুলনা-২ ও সাতক্ষীরা-২ আসনের সবগুলো ভোটকেন্দ্রে ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ হবে।

সংসদের আসন সংখ্যা : জাতীয় সংসদ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আইনসভা। এক কক্ষ বিশিষ্ট এ আইনসভার সদস্য ৩৫০। এর মধ্যে ৩০০ জন জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হয়ে থাকেন এবং অবশিষ্ট ৫০টি আসন নারীদের জন্য সংরক্ষিত। সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্যগণ নির্বাচিত ৩০০ সংসদ সদস্যের ভোটে (পরোক্ষ নির্বাচন পদ্ধতিতে) নির্বাচিত হন।

আরও প্রয়োজনীয় তথ্য : বাংলাদেশের সংবিধান অনুযায়ী জাতীয় সংসদের মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার পর ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচনের আয়োজন করতে হয়। বর্তমান সংসদের প্রথম অধিবেশন বসে ২৯ জানুয়ারি ২০১৪ সালে, তাই সংবিধানের ১২৩/২(ক) ধারা অনুযায়ী ৩১ অক্টোবর থেকে ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ এর মধ্যে নির্বাচনের আয়োজন করতে হয়। সে অনুযায়ী আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত