প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মজুরি নিয়ে ভুল বোঝাবুঝির সমাধান নির্বাচনের পরে

স্বপ্না চক্রবর্তী : পোশাক শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরী নিয়ে কোনও ভুল বোঝাবোঝি অথবা বিভ্রান্তি থাকলে তা জাতীয় নির্বাচনের পর সমাধান করা হবে বলে এক মত হয়েছেন পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ এবং এ খাতের শ্রমিক নেতারা। তারা বলেন, জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের অর্থনীতির এত বড় একটি খাতকে অস্থির করতে একটি মহল উসকানি দিচ্ছে। যা কোনোভাবেই কাম্য নয়।

শনিবার রাজধানীর বিজিএমইএ ভবনে পোশাক খাতের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে আয়োজিত এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএ সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ২০১৩ সালের সাথে সামঞ্জস্য রেখেই বর্তমান মজুরি প্রণয়ন করা হয়েছে। তাই এটি নিয়ে বিভ্রান্তির কোনো সুযোগ নেই। তারপরও একটি মহলের উসকানীতে সহজ সরল পোশাক শ্রমিকরা গত কয়েকদিন ধরে কর্মবিরতির পাশাপাশি আন্দোলনে লিপ্ত হয়েছে। পোশাক শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে বিজিএমইএ

সভাপতি বলেন, ডিসেম্বর ৭ থেকে ১০ তারিখের মধ্যেই আপনারা আপনাদের বেতন ভাতা যখন হাতে পাবেন তখনই সব বিভ্রান্তি দূর হবে। তাই এর আগে এই আন্দোলনের কোনো মানে নেই। আপনারা আন্দোলন বাদ দিয়ে ১৭ ডিসেম্বর থেকে নিয়মিতভাবে কাজে যোগ দেন। এই খাতের উন্নয়ন একমাত্র আপনাদের সহযোগীতায়ই বাড়বে। একই আহ্বান জানান জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক

ফেডারেশনের সভাপতি আমিরুল হক আমিন। তিনি বলেন, শ্রমিক সংগঠনগুলোর সাথে সরকার এবং মালিকপক্ষের বারংবার দেন-দরবার করেই অবশেষে নির্ধারিত হয়েছে ন্যূনতম মজুরি। এই মজুরি বাস্তবায়িত হচ্ছে এই মাস থেকে। আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে বেতন হাতে পেলেই সব দ্বিধা দূর হয়ে যাবে। তাই জাতীয় নির্বাচনের আগে এই খাতকে অস্থির করতে কোনো উসকানিতে কান না দিতে পোশাক শ্রমিকদের আহ্বান জানান তিনি।

তবে এসময় তিনি শ্রমিকদের কাজে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানালেও আন্দোলন বন্ধের কোনও নিশ্চয়তা দিতে পারেননি বিজিএমইএকে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিজিএমইএ এর প্রথম সহ-সভাপতি এস এম মান্নান কচি, সহ-সভাপতি (অর্থ) মোহম্মদ নাছিরসহ প্রায় ১০টি শ্রমিক সংগঠনের নেতারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ