প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভারতের হিন্দু রাষ্ট্র হওয়া উচিত ছিল: হাইকোর্টের রায় নিয়ে বিতর্ক

আনন্দ মোস্তফা : ভারতের একটি হাইকোর্টের সাম্প্রতিক রায়ে বলা হয়েছে, ধর্মের ভিত্তিতে যেহেতু দেশভাগ হয়েছিল, তাই ভারতকে হিন্দু রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করা উচিত। কেউ যেন ভারতকে আরেকটি ইসলামিক দেশে পরিণত করার চেষ্টা না করেন, তাহলে সেটা হবে ভারত আর বিশ্বের ধ্বংসের দিন। বিবিসি

বিচারপতি সুদীপ রঞ্জন সেন রায় প্রদানকালে মন্তব্য করেন, এখনও পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানে হিন্দু, শিখ, জৈন, বৌদ্ধসহ বেশ কয়েকটি জাতির মানুষের ওপরে অত্যাচার করা হয়, যাদের কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই।

এই রায় নিয়ে ইতোমধ্যেই ভারতে শুরু হয়েছে তীব্র বিতর্ক। রাজনৈতিক দলগুলো থেকে শুরু করে সামাজিক মাধ্যমেও আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে এই রায় নিয়ে।

বিতর্কিত এই রায়টি দেয়া হয়েছে একটি রিট পিটিশনের মামলায়, যেখানে মেঘালয়ের এক পুরনো বাসিন্দা আমন রাণা কোন প্রয়োজনে মেঘালয়ে সরকারের কাছ থেকে ডমিসাইল সার্টিফিকেট (রাজ্যে বসবাসের সার্টিফিকেট) চেয়েও তা পান নি।

সেই মামলাটির রায় দিতে গিয়ে বিচারপতি সেন লিখেছেন, এধরনের সার্টিফিকেট পেতে নাগরিকদের সমস্যা হচ্ছে ‘ভারতবর্ষের জন্মলগ্ন’ থেকেই। তাই দেশ এবং দেশভাগ নিয়ে সঠিক অবস্থাটা রায়ের মাধ্যমে জানাতে চেয়েছেন তিনি।

বিচারপতি সেন তার রায়ে লিখেছেন, ‘একটা সময়ে গোটা দেশটাই হিন্দু রাজত্বের অধীনে ছিল। কিন্তু মুঘলরা এসে ভারতের বিভিন্ন অংশ দখল করে যখন শাসন করতে শুরু করল, তখন অনেক বলপূর্বক ধর্মান্তরও করা হয়েছে।’

‘দেশভাগের সময়ে যে লাখ লাখ হিন্দু এবং শিখদের হত্যা করা হয়েছে, অত্যাচার চালানো হয়েছে এবং তাদের যে জোর করে পিতৃপুরুষের জমিজায়গা ছেড়ে আসতে বাধ্য করা হয়েছে, এবং প্রাণ বাঁচাতে তারা ভারতে এসেছেন, এসব তথ্য নিয়ে কোনও বিতর্ক নেই।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত