প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বেসরকারি ব্যাংকের চেয়ে খেলাপি ঋণে এগিয়ে সরকারি ব্যাংকগুলো

রমজান আলী : বেরকারি ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণের পরিমাণ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর চেয়ে কম। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মূলত সুশাসনের অভাবে ক্রমেই অবনতির দিকে যাচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, অগ্রণী, জনতা, রূপালী, বেসিক ব্যাংকগুলো। বেসরকারি ব্যাংকের তুলনায় রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণের পরিমাণ বেড়েছে কয়েকগুণ। এছাড়া, বাংলাদেশ ব্যাংকের কয়েকটি প্রতিবেদনে জানা গেছে, মূলধন ঘাটতিতে রয়েছে কয়েকটি ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংক খাতের ঋণ বেড়ে হয়েছে ৮ লাখ ৬৮ হাজার ৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে খেলাপি ৯৯ হাজার ৩৭০ কোটি টাকা, গত জুনে যা ছিল ৮৯ হাজার ৩৪০ কোটি টাকা।

তথ্যমতে, সেপ্টেম্বর শেষে রাষ্ট্রমালিকানাধীন ছয় ব্যাংকের খেলাপি ঋণ দাঁড়িয়েছে ৪৮ হাজার ৮০ কোটি টাকা, যা মোট ঋণের ৩১ দশমিক ২৩ শতাংশ। গত জুন শেষে ছিল ২৮ দশমিক ২৪ শতাংশ। এর মধ্যে ক্রিসেন্ট ও অ্যাননটেক্স গ্রুপের কারণেই জনতা ব্যাংকের খেলাপি ঋণ বেড়েছে সবচেয়ে বেশি। অন্যদিকে, বেসরকারি খাতের ৪০ ব্যাংকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪৩ হাজার ৬৬৬ কোটি টাকা বা ৬ দশমিক ৫৬ শতাংশই খেলাপি। গত জুন শেষে যা ছিল ৬ শতাংশ। সেপ্টেম্বর শেষে বিশেষায়িত দুই ব্যাংকের (কৃষি ও রাজশাহী কৃষি) খেলাপি ঋণের হার বেড়ে হয়েছে ২১ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

এব্যাপারে বিশেষজ্ঞরা বলেন, খেলাপি ঋণ বেশি থাকায় ব্যাংকগুলো নানাবিধ ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। মাত্রাতিরিক্ত খেলাপি ঋণের কারণে ব্যাংক ঋণের সুদের হার কমছে না। সিঙ্গেল ডিজিটে নেমে আসা সুদের হার খেলাপি ঋণ বাড়ার কারণে আবার হুহু করে বাড়ছে। এতে ব্যবসা-বাণিজ্যের খরচও বাড়ছে। বেড়ে যাচ্ছে পণ্যের দাম। ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন উদ্যোক্তা ও ভোক্তারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত