প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সামলাতে না পারায় ম্যারাডোনাকে ঘর থেকে বের করে দিলো বান্ধবী

স্পোর্টস ডেস্ক : বারবার শিরোনামে থাকেন এবং থাকতে পছন্দ করেন আর্জেন্টাইন কিংবদন্তী দিয়েগো ম্যারাডোনা। নেশা আর নারীর প্রতি তার ঝোঁক অনেক আগে থেকেই। বিতর্কিত শিরোনামে বারবার আসা ম্যারাডোনা আবারও শিরোনামে এলেন গার্লফ্রেন্ডের কাছে অপদস্ত হওয়ায়।

কিছুদিন আগে মেক্সিকোর দ্বিতীয় বিভাগের দল দোরাদো দে সিনালোকে সামলানোর দায়িত্ব পেয়েছেন ম্যারাডোনা। কিন্তু দল সামলাতে গিয়ে ঘর সামলানো হচ্ছে না তার। আর্জেন্টিনায় না থেকে মেক্সিকোতে পরে আছেন। আর এ কারণে ম্যারাডোনাকে ঘর থেকে বের করে দিয়েছেন তার বান্ধবী রোসিও ওলিভিয়া।

বয়সের ব্যবধান থাকলেও গত ছয় বছরে তাদের সম্পর্ক ছিল বেশ মধুর।

৫৮ বছর বয়সী ম্যারাডোনার বর্তমান বান্ধবী ওলিভিয়ার বয়স মাত্র ২৮। এই ব্যবধান থাকা সত্ত্বেও সম্পর্কটা বেশ জমেছিল। ২০১২ সালে প্রথম দেখা হয়েছিল দুজনের। সম্পর্কের টানে বান্ধবীকে রাজধানীতে একটি বাড়িও কিনে দিয়েছিলেন ম্যারাডোনা। কিন্তু সম্প্রতি ওলিভিয়া শুধু ছয় বছরের সম্পর্কেই শেষ করেননি। ম্যারাডোনার কিনে দেওয়া ঐ বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছেন ম্যারাডোনাকেই।

আর্জেন্টাইন টিভি চ্যানেল এল নুয়েভের এক প্রোগ্রাম তোদাস লাস তার্দেসে এমন খবরই শুনিয়েছেন সাংবাদিক লিও পেকোরারো। ঐ সাংবাদিক করেছেন, ‘ভিস্তায় যে বাড়িটি ওলিভিয়াকে ম্যারাডোনা উপহার দিয়েছিলেন, সেখান থেকে তাকেই বের করে দিয়েছে বান্ধবী। শুধু তাই নয়, তাদের মধ্যকার সম্পর্ক শেষ।’ বিচ্ছেদের ঘটনায় নাকি ভেঙে পড়েছেন ম্যারাডোনা।

এ ধরনের মধুর সম্পর্ক আর দেখা যাবে না।

বিচ্ছেদের ঘটনার সূত্রপাতও নাকি বান্ধবী ওলিভিয়া নিজেই। কিছুদিন আগে ইএসপিএন রেদেস-এ সাক্ষাতকার দেওয়ার একপর্যায়ে নিজেকে ‘সিঙ্গল’ দাবি করেছিলেন ওলিভিয়া। আর তাতেই নাকি ক্ষেপেছেন ম্যারাডোনা। গত সপ্তাহে ছুটির দুদিন নাকি ঝগড়া করেই পার করেছিলেন এ দুজন। এরপরই ম্যারাডোনাকে ঘর থেকে বের করে দিয়েছেন বান্ধবী ওলিভিয়া। সেই সঙ্গে শেষ করেছেন ছয় বছরের সম্পর্ক।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত