প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সারাদেশে আওয়াজ উঠেছে নৌকাডুবির, পতনের ক্ষণগননা চলছে : রিজভী

শিমুল মাহমুদ : সরকার আগামী নির্বাচনে নিশ্চিত ভরাডুবি জেনে শেষ মরনকামড় দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল রিজভী। সারাদেশে আওয়াজ উঠেছে নৌকাডুবির। এখন পতনের ক্ষণগননা চলছে। তাই পলায়নপর সরকার নানামুখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। বৃহস্পতিবার নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের এক সংবাদ সম্মেলন তিনি এ কথা বলেন।

রিজভী বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এবং ২০ দলীয় জোট নির্বাচনে অংশ নেয়ার ঘোষণা দেয়ার পরই চরম দুশ্চিন্তায় পড়ে গেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। একাধিক গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে তারা (সরকার)জানতে পেরেছে ক্ষমতা এবার হাতছাড়া হয়ে যাবে।

গত ১০ ডিসেম্বর সোমবার পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের কতিপয় নেতাদের নিয়ে একটি গোপন বৈঠক হয়েছে জানিয়ে রিজভী বলেন, এ বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে নির্বাচনী প্রচারণায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকদেরকে মাঠে নামাতে সর্বোচ্চ পদক্ষেপ নেয়া। একটি পর্যায়ে তারা নিজেরাই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকদের ওপর হামলা চালাবে। প্রয়োজনে বড় ধরণের নাশকতাও করতে পারে। পরে এসব হামলা ও নাশকতার দায়ভার চাপাবে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের ওপর। এসব ঘটনার মাধ্যমে তারা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বোঝানোর চেষ্টা করবে যে, যারা এখনই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকদের ওপর হামলা করতে পারে তারা ক্ষমতায় আসলে পরিস্থিতি কী হবে ?

বিএনপির এ মুখপাত্র বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্ত এবং আওয়ামী হানাদারদের কবল থেকে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে ধানের শীষের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। সারাদেশে জনগণ এখন ঐক্যবদ্ধ। এই অবৈধ সরকার আগামী নির্বাচনে নিশ্চিত ভরাডুবি আঁচ করতে পেরে হামলা গ্রেফতার বাড়িয়ে দিয়েছে। টিকে থাকার জন্য শেষ মরনকামড় দিচ্ছে এখন।

পুলিশ বিভাগকে অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, নির্বাচনী হাওয়া কাদের অনুকুলে বইছে সেটি উপলদ্ধি করতে চেষ্টা করুন। আপনারে সরকারের কথা বিশ্বাস করে জনগণের প্রতিপক্ষ হবেন না। জনগণের পক্ষে দাঁড়ান। দু:শাসনের অবসানের জন্য আপনারাও অবদান রাখুন।

রিজভী বলেছেন, আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক আদর্শ হলো তাদের বিরুদ্ধে কোন সমালোচনা সহ্য না করা। ‘৭৫ সালে সব পত্রিকা বন্ধ করে দিয়ে একদলীয় বাকশাল কায়েম করা হয়েছিল। এবার শেখ হাসিনা তার অনুগত দলদাশ মিডিয়াদের দিয়ে স্তুতি প্রচার নির্বিঘœ করতে ৫৪ টি নিউজ পোর্টাল বন্ধ করে দিয়েছেন। এর মাধ্যমে শেখ হাসিনা নিজেই প্রমান করলেন, ‘বাকশাল মরিয়াও মরে নাই’!!

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ