প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নির্বাচনেরপর চিত্র পাল্টে যাবে : এমাজউদ্দিন আহমেদ

শিমুল মাহমুদ : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও বিশিষ্ট রাষ্ট্রবিজ্ঞানী প্রফেসর এমাজউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, ২০১৮ সালের পর বাংলাদেশের ভিন্নতা লক্ষ্য করবো। আগামী ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের পর অন্য আরেকটা চিত্র আসবে।

তিনি বলেন, কোন প্রতিবাদ যদি ব্যর্থ হয় তাহলে আরো সুচিন্তিতভাবে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে হবে। আর এটার সময় এখনি।
৩০ তারিখে নির্বাচন ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মতো নেই। এই নির্বাচন একটা আন্দোলনও বটে। আন্দোলনে যেভাবে অংশগ্রহণ করেতে হয় একিভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা দরকার।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে শত নাগরিক আয়োজিত ” সংবাদপত্রে দেশ: এক দশকের মানচিত্রে প্রদর্শনী ও সেমিনারে ত্নি এ কথা বলেন।

পুলিশ প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমার বহু ছাত্র পুলিশ বিভাগে আসছেন। আমি তাদের বলবো সরকার গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে বিধস্ত করার যে পরিকল্পনা করেছিলো তা উচিৎ না। রাষ্ট্রের কর্মকর্তা কর্মচারী জনগণের সেবার জন্য তৈরি। তাদের বিভিন্ন পর্যায়ের কাজকর্ম, প্রশিক্ষণ, দক্ষতা অর্জন, বিশেষজ্ঞা সব কিছু লক্ষ একটি জন সাধারণের সুবিধার জন্য।

তিনি আরো বলেন, সরকারের এই ভুল অংশীদার তোমরা থেকো না। জাতি মনে রাখলেও জনসাধারণ তোমাদের দ্বারা উপকৃত হবে। আর জাতীয় পর্যায়ের দুর্দিন, স্বৈরাশাসন এগুলার স্থায়ীত্ব একেবারেই না।

দেশের গণতন্ত্রকে ধব্বংস করতে হলে দুটি পদক্ষেপ যথেষ্ট, রাষ্ট্র, সরকার এবং দল প্রত্যাকটি স্বতন্ত্র করা। বিভিন্ন পর্যায়ে কর্মকর্তা- কর্মচারী, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী শিক্ষা, স্বাস্থ, যোগাযোগ যেকোনো বিষয়ে মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ না দিয়ে দলের অরতি আনুগত্য,সরকারের আনুগত্য তাদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

সরকারের সমালোচনা করলে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মমামলা হয় না। এদেশে রাষ্ট্র আর সরকারের মধ্যে তফাৎ রাখা হয়
নাই। সরকার প্রথম থেকেই এই কাজটি করে আসছে।

প্রফেসর আনোয়ারুল হক বলেন, ননবেসিক বুদ্ধিজীবীদের কাছে গণতন্ত্র আজ ভাসুর হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, দেশে গণতন্ত্র নাই, উন্নয়ন হয়েছে, একটি শ্রেণির উন্নয়ন হয়েছে, শাসকদের উন্নয়ন হয়েছে। সাধারণ মানুষের কনো উন্নয়ন হয়নি। আমরা আশা করি আগামী ৩০ তারিখের নির্বাচনের মাধ্যমে দেশে একটা পরিবর্তন আসবে। নির্বাচনের মিধ্য দিয়ে দেশ রেনেসাঁ যুগে পদার্পণ করবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস প্রফেসর এমাজউদ্দিন আহমেদ সভাপতিত্বে সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন, প্রফেসর আনোয়ারুল হক, প্রফেসর মাহবুব উল্লাহ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির আহবায়ক অধ্যাপক উবায়দুল ইসলাম, প্রফেসর আব্দুল লতিফ মাসুম প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত