Skip to main content

‘আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে খবর এসেছে বিএনপি আইএসের সঙ্গে বৈঠক করেছে’

সাইদ রিপন : নির্বাচন কমিশনে আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক অভিযোগ করে বলেছেন, আমাদের দেশের নির্বাচনকে বানচাল করতে আইএসের সঙ্গে বিএনপি বৈঠক করা হয়েছে। এটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে খবর এসেছে। তারা নির্বাচনে ধ্বংসাত্মক কার্যক্রম করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করছে। এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পরেই আমরা তো নির্বাচনমুখী দলগুলো উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে রয়েছি। আমাদের আশঙ্কা থাকে তারা হয়তো পানি ঘোলা করে নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার পথ খুঁজচ্ছে। শনিবার দুপুরে নির্বাচন কমিশনে ইসির সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, ‘দেখুন, নির্বাচন কমিশন স্বাধীনভাবে কাজ করছে। স্বাধীনভাবে কাজ করছেই বলেই রিটার্নিং কর্মকর্তারা যাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছিলেন, সেখান থেকে অনেক বৈধ করেছেন নির্বাচন কমিশনের কোর্ট। তাছাড়া সংবিধানের বাইরে গিয়ে নির্বাচন কমিশনের কিছু করার নেই। সংবিধানের বাইরে কিছু করার আছে, এমনটা আমরাও মনে করি না। আমরা এসেছিলাম প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে দেখা করতে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে বিএনপি-জামায়াত-ঐক্যফ্রন্ট পানি ঘোলা করার চেষ্টা করেছে। ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার চেষ্টা করেছে। তারা নন-ইস্যুকে ইস্যু বানিয়ে নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করছে। নানক বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের কাছে আমাদের আরজি থাকবে, সংবিধান ও আরপিও অনুযায়ী তারা কাজ করবেন নির্ভয়ে। কোনো চাপের কাছে উনারা মাথা নত করবেন না। এটাই আমাদের প্রত্যাশা।’ নির্বাচনকে সামনে রেখে মনোনয়ন বাণিজ্যের বিক্ষোভ-বিদ্রোহ চলছে পল্টন কার্যালয়ের সামনে। নিয়োগ বাণিজ্যের কারণে জনগণের চলাচলে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। দলের দুর্বলতাকে, দুর্নীতিকে আড়াল করার জন্য তারা ভিবিন্ন  ইস্যু বানানোর চেষ্টায় যেন সফল না হয়, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।’ জাতীয় পার্টির সাবেক মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারের বিরুদ্ধেও মনোনয়ন বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। তার বিরুদ্ধেও কী অভিযোগ জানিয়েছেন ইসির কাছে? জানতে চাইলে নানক বলেন, ‘বিষয়টি তাদের ব্যাপার। এটা তারা বলবেন। আমরা বিএনপির ব্যাপারে কথা বলেছি। রুহুল আমিন হাওলাদারের বিষয়টি একেবারেই জাতীয় পার্টির বিষয়।’