প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসবে না রক্তগঙ্গাও বইবে না : ড. মীজানুর রহমান

লিয়ন মীর : বিএনপি-জামায়াত জোট রাষ্ট্রক্ষমতায় আসবেও না, দেশে রক্তগঙ্গাও বইবে না বলে মনে করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি দেশের মানুষ এখন অতীতের তুলনায় অনেক বেশি সচেতন, সতর্ক, বুদ্ধিমান ও বিবেকবান। সচেতন ও বিবেকবান এই ভোটাররা বিএনপি-জামায়াত জোটকে তাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে রাষ্ট্রক্ষমতায় আনবে বলে মনে করি না আমি। বাস্তবতাও বলে, বিএনপি-জামায়াত জোটের ক্ষমতায় আসার কোনো সম্ভাবনা নেই। সে কারণেই দেশে রক্তগঙ্গা বয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছি না আমি। তিনি আরও বলেন, বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এলে লাখ লাখ মানুষকে হত্যা করা হবেÑ আওয়ামী লীগ নেতাদের এমন উদ্বেগ অমূলক নয়। কেননা বিএনপি জামায়াত ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে মানুষের ওপর যে অত্যাচার করেছিলো, বিশেষ করে সংখ্যালঘুদের ওপর যে অমানবিক নির্যাতন করেছিলো সেই বাস্তবতা থেকেই আওয়ামী লীগের মধ্যে এই উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। বাগেরহাট, খুলনা, ভোলায় হাজার হাজার মানুষের ওপর অত্যাচার ভয়াবহ করা হয়েছিলো বিএনপি-জামায়াতের। সে সময় তোফায়েল আহমেদ সেই ভয়াবহ পরিস্থিতি সামাল দিয়ে ছিলেন। সে কারণেই তিনি এই আশংক্সকা করেছেন। তার আশংক্সকার বাস্তব ভিত্তি আছে।

এক প্রশ্নের জবাবে ড. মীজানুর রহমান বলেন, আমি মনে করি না দেশে আবার ভয়াবহ একটা পরিস্তিতি তৈরি হবে। সংবিধানে যে ব্যবস্থা রয়েছে, তাতে সে ধরনের কোনো পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম। কেননা ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে ক্ষমতার পরিবর্তন হলেও ২৯ জানুয়ারি পর্যন্ত বর্তমান সরকার ক্ষমতায় থাকবে। এই এক মাসে পরিস্থিতি অনেকটা সামাল দেওয়া সম্ভব হবে। এটা মনে করছি না দেশের মানুষ বিএনপি-জামায়াতকে ক্ষমতায় আনবে। কিন্তু তারপরেও যদি মানুষ বিএনপি-জামায়াতের মতো মৌলবাদী একটি শক্তিকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনে, তাহলে যেকোনো খারাপ পরিস্থিতির জন্য মানুষ নিজেরাই দায়ী থাকবে। নিজেরাই নিজেদের ভুলের মাশুল দেবে। এখানে মানুষের সচেতনতাই সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তিনি বলেন, দেশের মানুষ আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির কর্মকা- বিবেচনায় নিয়ে ভোট দেবে। এখানে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে তরুণ প্রজন্ম। এখন তরুণ প্রজন্ম তাদের ভবিষ্যৎ নিজেরাই বেছে নেবে। তারা মৌলবাদী সন্ত্রসী গোষ্ঠীকে ভোট দেবে, নাকি উন্নয়নের পক্ষে ভোট দেবে? এটা তাদের বিবেচনার ওপর নির্ভর করছে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত