প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নির্বাচন পর্যবেক্ষক ও গণমাধ্যমকর্মীদের ইসির মৌখিক নির্দেশনা

সৌরভ নূর : নির্বাচনে দেশি-বিদেশি সংস্থাগুলোর পর্যবেক্ষণের ক্ষেত্রে কমিশনের নীতিমালা থাকলেও সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন ব্রিফিং করে নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের কিছু মৌখিক নির্দেশনা দিয়েছেন। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, ‘ভোটের আগে পরিপত্র জারি করে স্পষ্ট করা দেয়া হবে ভোটের দিন কী করা যাবে আর কী করা যাবে না।’ সূত্র: বিবিসি বাংলা

সর্বশেষ তিনটি সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটকক্ষ, এমনকি কেন্দ্রে ঢুকতে গিয়ে সাংবাদিকদের বাধার মুখে পড়তে হয়। তাই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের খবর সংগ্রহ ও প্রচারের নিয়ম-নীতি নিয়ে ইতিমধ্যে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের দুই দফা আলোচনা হয়েছে। যদিও গণমাধ্যমের জন্য নির্বাচন কমিশনের লিখিত কোনো নীতিমালা নেই।

এ প্রসঙ্গে নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, সাংবাদিকরা প্রিজাইডিং অফিসারের সম্মতি নিয়ে বুথে যেতে পারবে। এমনকি তারা ক্যামেরায় ছবি ধারণ করতে পারবে না। এবং যেটা আমাদের নীতিমালায় নেই পরিপত্র দিয়ে সেটা জানিয়ে দেয়া হবে। তবে কোনো লাইভ ব্রডকাস্ট করা যাবে না বুথের মধ্যে থেকে। আর ভোট গ্রহণে বিঘœতা সৃষ্টি হয় এমন কোনো সম্প্রচার করা যাবে না।

এদিকে ধ্যতামূলক অনুমতির বিরোধিতা করে রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ইলিয়াস হোসেন জানান, নির্বাচনের আগেই কমিশন সাংবাদিকদের যে কার্ড দিয়ে থাকেন, সেটাই তো অনুমতিপত্র। এখন পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন যা বলেছে সেটি পরিষ্কার না। আমার মনে হয় এ ব্যপারে পরিষ্কার করে নিয়ম-নীতিগুলো জানিয়ে দেয়া দরকার।

তিনি বলেছেন, সাংবাদিকরা যদি আসল চিত্রটা তুলে আনতে না পারে, তাহলে পর্যবেক্ষকরাও পূর্ণ াঙ্গ তথ্য পাবেনা, আর সাধারণ জনগণও জানতে পারবে না। এছাড়াও কমিশনের কড়াকড়ি নিয়মের কারণে দেশীয় কিছু নামকরা সংস্থাও এবার নির্বাচন পর্যবেক্ষণে অংশ নিতে পারছে না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ