প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে গলাটিপে হত্যা করেছে : জয়নুল আবদীন

উল্লাস মূর্তজা : জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ জয়নুল আবেদীন ফারুক বলেছেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি বিনা ভোটে নির্বাচিত হয়ে আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে গলা টিপে হত্যা করেছে। পরবর্তীতে একের পর এক সংশোধনী করে বিচার বিভাগকে কলঙ্কিত করেছে। বিরোধীদলের উপর যে অত্যাচার নিপীড়ন চালিয়েছে গুম, খুন করেছে এ সমস্ত কারণে আওয়ামী লীগ আর কোনো দিনই ক্ষমতায় আসবে না। বৃহস্পতিবার ‘নিউজ ২৪’-এর ‘জনতন্ত্র গণতন্ত্র’ টকশোতে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ নির্বাচনে পরাজয় বরণ করবে এই কারণে, ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় আসে, তখন ১/১১ এর মতো সরকারকে তারা সমর্থন করেছিলো। ১/১১ সরকারের কাজের বৈধতা দিয়ে তাদের মাধ্যমে তারা ক্ষমতায় এসেছিলো। বিডিআর বিদ্রোহের জন্য আওয়ামী লীগ সম্পুর্ণভাবে দায়ী। এছাড়াও হলমার্ক কেলেঙ্কারি, শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারি, ব্যাংক লুট আওয়ামী লীগের অপকর্মের ফসল।

তিনি আরও বলেন, যদি নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু নির্বাচন দিতে পারে তাহলে, অবশ্যই বিএনপি সংখ্যারিষ্ঠতা নিয়ে নির্বাচনে জয়লাভ করবে। আওয়ামী লীগ জামায়াতে ইসলামী নিয়ে অভিযোগ করে আসছে। আমি একটা কথা পরিস্কার করতে চাই, জামায়াতে ইসলামী আমাদের ২০ দলীয় জোটের একটি দল। এটা বিএনপির অভ্যন্তরীণ ব্যাপার যে, বিএনপি কার সাথে জোট করবে না করবে সেটা বিএনপি বুঝবে। ড. কামাল হোসেন সহ আমরা স্বাধীনতার স্বপক্ষের লোক। তাহলে জামায়াতের সাথে জোট শুধুমাত্র আমাদের নির্বাচনী কৌশল। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ২০১৮ সালে প্রমাণিত হবে কারা মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি আর কারা বিরোধী শক্তি।

যেহেতু বিএনপি ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে নির্বাচনে এসেছে, অতীতের সকল কিছু ভুলে গিয়ে ২০১৮ সালে যে নির্বাচনটা হচ্ছে মানুষ যেনো ভোট কেন্দ্রে আসতে পারে এবং যারা বিরোধীদলের প্রার্থী তারা যেনো নির্বিঘ্নে তাদের নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালাতে পারে সেই ব্যবস্থাটা সরকারকে করতে হবে। বলে জানান, জয়নুল আবেদীন ফারুক।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ