প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের প্রয়োজন অনুসারে কাউন্সিলিং করা উচিত : অধ্যাপক মো. ফজলুর রহমান

তানজিনা তানিন : অরিত্রীর আত্মহত্যা দেশের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাদান প্রক্রিয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। শিক্ষার্থীদের আত্মহত্যার প্রবণতা দিনে দিনে বাড়ছে পাচ্ছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। এই প্রবণতাকে রুখতে হলে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের কাউন্সিলিং প্রয়োজন বলে মনে করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা বিভাগের অধ্যাপক মো. ফজলুর রহমান।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি আরও বলেন, শিক্ষকরা ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে সবসময় সহনীয় আচরণ করতে পারেন না। একটানা শিক্ষকতা তাদের মানসিক চাপ সৃষ্টির কারণ হয় অনেক ক্ষেত্রে। তাই শিক্ষকদের প্রয়োজন অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর মনোবিদের কাউন্সিলিং বা পরামর্শের ব্যবস্থা করা উচিত। একই সাথে জীবনের কোনো কঠোর পরিস্থিতিতেই আত্মহত্যার প্রবনতা বা হতাশা যেন গ্রাস করতে না পারে, শিক্ষার্থীদের এ শিক্ষা পরিবার ও স্কুলে দেওয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের জন্যও কাউন্সিলিংয়ের ব্যবস্থা থাকা উচিত।

উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালিয়ে শিক্ষার্থীদের পরপর আত্মহত্যা কর্তৃপক্ষকে ভাবিয়েছে। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-ছাত্র কেন্দ্রে (টিএসসি) শিক্ষার্থীদের যেকোনো সমস্যা শোনার জন্য উপদেষ্টা নিয়োগ দেয়া হয়েছে। যারা শিক্ষার্থীদের পরামর্শ দিতে নিয়োজিত।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কাউন্সিলিং করার প্রশাসনিক নির্দেশনা রয়েছে। তবে দেশের এতো লোকবলকে একই সময়ে কাউন্সিলিং করা সম্ভব নয়।

গবেষণা সাপেক্ষে বের করতে হবে কতোজন শিক্ষার্থী বা শিক্ষকের জন্য কতোজন পরামর্শদাতা প্রয়োজন। দেশের প্রেক্ষাপটে বলা যায়, সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের জন্য পরামর্শদাতা নিয়োগের মতো সম্পদ আমাদের নেই। তাই নির্দিষ্ট পরিমাণে, প্রয়োজন অনুসারে কাউন্সিলিং করার ব্যবস্থা করা যেতে পারে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত