Skip to main content

৮২ বছরের রেকর্ড ভেঙে ইতিহাস গড়লেন ইয়াসির

স্পোর্টস ডেস্ক : আজ থেকে ৮২ বছর আগের ইতিহাস ভেঙে সেখানে নিজের নাম লিখিয়েছেন পাকিস্তানের লেগ স্পিনার ইয়াসির শাহ। আগের ইনিংসেই লোয়ার অর্ডারে নামা অভিষিক্ত সমারভিল ৯৯ বল খেলেছিলেন। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে সেই সমারভিলকে প্যাভিলিয়নে ফিরিয়েই ‘দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরি’র রেকর্ড গড়েছেন। ব্যাট হাতে নয়, ব্যাটসম্যানদেরকে সাজঘরে ফিরিয়ে সবচেয়ে কম টেস্টে (মাত্র ৩৩ টেস্ট) ২০০ উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেছেন ইয়াসির। আবুধাবি টেস্ট খেলতে নামার আগে ইয়াসিরের নামের লেখা ছিল ৩২ টেস্টে ১৯৫ উইকেট। অর্থাৎ উইকেটের ‘ডাবল সেঞ্চুরি’ তুলে নিতে দরকার ছিল আর ৫ উইকেট। সেটি আবুধাবিতেই যে পেয়ে যাবেন, তা প্রত্যাশা করেছিলেন অনেকেই। এই টেস্ট সিরিজে সর্বোচ্চ উইকেট নেওয়া ইয়াসিরের ঘূর্ণির সামনে কিউইরা যে দাঁড়াতেই পারছে না! নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংসে ৩ উইকেট নেওয়ার পর দ্বিতীয় ইনিংসে টম লাথামকে তুলে নিয়ে মাত্র ১ উইকেটের দূরত্বে দাঁড়িয়ে ছিলেন ইয়াসির। সমারভিলকে ফাঁদে ফেলে টেস্ট ক্রিকেটে দ্রুততম ২০০ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড গড়ার পথে ইয়াসির ভেঙেছেন ৮২ বছর আগের রেকর্ড। ১৯৩৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ৩৬তম টেস্টে ২০০ উইকেট নিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ক্ল্যারি গ্রিমেট। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরুর আগেই টেস্ট ক্যারিয়ার শেষ হয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার সাবেক এই লেগ স্পিনারের। ইয়াসির সমারভিলকে আউট করার আগ পর্যন্ত গত ৮২ বছর ধরে টেস্টে গ্রিমেটই ছিলেন দ্রুততম ২০০ উইকেট নেওয়ার রেকর্ডধারী। আবুধাবিতে আজ সেই গ্রিমেটকে পেছনে ফেলে ইয়াসির ২০০তম উইকেটের দেখা পেলেন ক্যারিয়ারের ৩৩তম ম্যাচে। দুজনের মধ্যে আরেকটি পার্থক্য আছে- গ্রিমেট এই কীর্তি গড়তে সময় নিয়েছিলেন ১০ বছর ৩৫৩ দিন। ইয়াসির তা গড়তে সময় নিলেন মাত্র ৪ বছর ৪২ দিন। সময় হিসেব করলে ইয়াসির চতুর্থ দ্রুততম। ৩ বছর ৩৪০ দিন সময় নিয়ে ২০০তম উইকেটের দেখা পাওয়া শেন ওয়ার্ন এই তালিকায় শীর্ষে। তবে ম্যাচের হিসেবটাই বিবেচনা করা হয় আর সেখানে ইয়াসিরই এখন সবার শীর্ষে।