Skip to main content

জামায়াত নামে কোনো দল থাকতে পারে না : জোনায়েদ সাকি

অপু খান : গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেছেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের দরকার হলে বাইরে থেকে পর্যবেক্ষক এনে খুব সার্টিফিকেটের দরকার ছিলো না। সুষ্ঠু নির্বাচন নাই বলে পর্যবেক্ষকের দাবি ওঠে। বুধবার রাতে বাংলা টিভির টক শো তে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, পর্যবেক্ষক আসলেই বা কি হবে, আইন দিয়েই তো একটা ব্যবস্থা করে রাখা হয়েছে। সেটা তো খুব গুরুত্বপূর্ণ। পর্যবেক্ষকরা শুধু দেখবেন কথা বলতে পারবেন না, প্রায় মূর্তির মতো দাঁড়িয়ে থাকতে হবে। এই জায়গাটা ভীষণ রকম সমস্যা বলে আমি মনে করি। প্রিন্ট এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা কি ভাবে ভূমিকা পালন করবেন। কোনো ছবি, কোনো কিছুই প্রকাশ করতে পারবে না। জামায়াতে ইসলামী প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর সহযোগী সংগঠন হিসেবে জামায়াত ছিলো। সুতরাং জামায়াতে ইসলামী দল হিসেবে বাংলাদেশে কোনো রাজনৈতিক দল থাকতে পারে না। তবে জামায়াতের যে সদস্য তারা সবাই কি যুদ্ধাপরাধী? সেটা কিন্তু বলতে পারছেন না। সেই সদস্যরা কোনো দল গঠন করবে নাকি অন্য দলে যোগ দেবে সেটা তাদের সিদ্ধান্তের ব্যাপার । আমি তাদের সাথে আদর্শিকভাবে লড়বো কিন্তু তারা যতোক্ষন বাংলাদেশের নাগরিক তারা যদি যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত না থাকে তারা তো নির্বাচন করবে, এবং কোনো দল যদি প্রতীক দেয় সেটা সেই দলের রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের ব্যাপার। তিনি আরও বলেন, ৪৮ বছর পরেও ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার কথা বলছি, বাংলাদেশের উচ্চ পর্যায় থেকে নিম্ন পর্যয়ের মানুষ ভয়ের বাংলাদেশে আছেন। আমরা ভয় মুক্ত বাংলাদেশ চাই। ভয় মুক্ত বাংলাদেশ করতে হলে জনগণকে ভোট দিতে পারতে হবে। কেন্দ্র দখলের যে তৎপরতা তা প্রতিহত করতে হবে। সেটার মধ্য বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে। জনগণ যদি ভোট দিয়ে কাউকে ক্ষমতায় আনে তাহলে তো আমাদের সমস্যা নেই, কিন্তু জনগণকে ভোট দিতে না দিয়ে নিজেরা নিজেরা ভোট দিয়ে বলবেন সুষ্ঠু নির্বাচন এই নির্বাচন আমরা চাই না।