প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

`আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বেশ কয়েক বছর ধরে সফলতা দেখাচ্ছে’

রাশেদুল ইসলাম : জঙ্গি বলতে দৃশ্যমান যাদেরকে আমরা দেখি, বড় ধরনের আক্রমণ করা বা এক ধরনের ধর্মীয় মানুষিকতার দিক থেকে তারা এক সশস্ত্র সংগঠন গড়ে তোলে। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের যেকোন অনুষ্ঠানে সেটা নির্বাচন হোক, ধর্মীয় কোন অনুষ্ঠান হোক বা জাতির যেকোন কর্মসূচির ভিতরে তাদের এক ধরনের বিশেষ তৎপরতা থাকতে পারে। অর্থাৎ আমরা এসময় এক ধরনের ঝুঁকির মধ্যে থাকি।

বুধবার চ্যানেল ২৪ এর মুক্তবাক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন মানবাধিকার কর্মী মো: নূর খান।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের জঙ্গিবাদের যে কার্যক্রম আছে সেটা নানা ফর্মে রয়েছে। যদি আমরা এ বিষয়টাকে ধরে নেই যে জঙ্গিবাদ মানে হলো হলি আর্টিজেনের মতো বিষয়, তাহলে আমাদের বিবেক বিবেচনা করা সঠিক হবে না। বরং সাম্প্রদায়িকতার মানষিকতা হলো, এক ধরনের মানষিকতাসম্পন্ন লোক আছে, যারা এক সম্প্রদায় হয়ে আরেক সম্প্রদায়কে যায়গা দিতে চায় না। এদের মধ্যে বিশেষ করে খুলনা, সাতক্ষীরা, চাঁপাই নবাবগঞ্জ এরকম বিভিন্ন্ জেলা আছে যাদের মধ্যে এরকম একটা বিষয় আছে।

তিনি আরো বলেন, আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বেশ কয়েক বছর ধরে তাদের ক্ষেত্রে সফলতা দেখাচ্ছে। কিন্তু এর বাইরে যে কাজগুলো রয়েছে, সেগুলো দীর্ঘদিন ধরে অনুপস্থিত। সে কাজগুলো হচ্ছে, দুই/একটি মানববন্ধন কিংবা এক লক্ষ মানুষের সাক্ষর ছাড়া খুব বেশি কাজ জাতীয়ভাবে গ্রহণ করা হয়নি। জঙ্গিবাদ থেকে ফিরিয়ে আনার জন্য একটা লোক যতক্ষণ কাষ্টডিতে থাকছে, সেক্ষেত্রে তাদের(পুলিশের) একটা কার্যক্রম থাকতে পারে। কিন্তু কাষ্টডির বাইরে যখন থাকছে, তখন কিন্তু ঐ কাজটি সমাজের অন্যান্য অংশের উপর বর্তায়। সেক্ষেত্রে জঙ্গিবাদ ঠেকাতে শিক্ষক, মসজিদের ইমাম সাহেব, রাজনীতিবিদেরও অগ্রণী ভূমিকা নেওয়ার আছে। কিন্তু দীর্ঘদিন থেকে এ কাজটি অনুপস্থিত।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ