প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রতিদ্বন্দিতামূলক নির্বাচন নিয়ে আশাবাদী ট্রাম্প প্রশাসন

তরিকুল ইসলাম : বাংলাদেশের আসন্ন নির্বাচন সকল রাজনৈতিক দলের অংশ গ্রহণে প্রতিদন্দিতামূল হয়ে উঠবে বলে আশাবাদী ট্রাম্প প্রশান। হোয়াইট হাউসের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক শীর্ষ কর্মকর্তারা নির্বাচনের আগ মূহুর্তের ও পরবর্তী পরিবেশের দিকে তীক্ষ্ণ নজর রাখছে।

এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্র থেকে আসার তালিকায় থাকা পর্যবেক্ষকদের পাশাপাশি ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসের অন্তত আটটি দল নির্বাচন পর্যবেক্ষণে যুক্ত হবে এমনটাই জানিয়েছে ঢাকার মার্কিন দূতাবাস ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র। এর মধ্যে দেশটির পক্ষে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ইনস্টিটিউটের (এনডিআই) ১২টি দল সরেজমিনে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করবে। প্রতিটি দলে অন্তত দু’জন সদস্য থাকছেন।

সব মিলিয়ে কমপক্ষে ২০টি পর্যবেক্ষক দল পর্যবেক্ষণ করবে। বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থান ঘুরে এসব পর্যবেক্ষণ দলকে সহযোগিতার বিষয়টি পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে আলোচনায় তুলেছেন দেশটির নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার। সোমবারের ঐ বৈঠকের পর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ নিয়ে পদক্ষেপ নিতে এরই মধ্যে নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ জানিয়েছে। কূটনৈতিক সূত্র বলছে, নির্বাচন প্রক্রিয়া গভীর পর্যবেক্ষণে রেখেছে হোইট হাউস। উভয় দেশ একই পদ্ধতি অনুসরন ও গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় বিশ্বাসী বলে যুক্তরাষ্ট্র অংশগ্রহণমূলক, গ্রহণযোগ্য এবং স্বচ্ছ নির্বাচন আশা করে।

গত ২২ অক্টোবর ঢাকা সফর করেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক প্রধান উপ-সহকারী পররাষ্ট্র মন্ত্রী এলিস ওয়েলস। অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের বিষয়ে সরকারের দেওয়া অঙ্গিকার রক্ষার আহ্বান জানিয়ে সে সময় তিনি বলেন, সরকার নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে বদ্ধপরিকর। আমরা সরকারের এ প্রতিজ্ঞার বাস্তবায়ন দেখতে চাই। সদ্যবিদায়ী মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাটের ভাষায়, যে দেশটি মধ্যম আয়ের দেশ হতে যাচ্ছে, সেই দেশের জন্য গ্রহণ যোগ্য নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। গণতন্ত্র তখনই উন্নত হয় যখন সকল জনগণ এতে সস্পৃক্ত হয়। বিরোধী দলের অনেক নেতা গ্রেফতার হয়েছে। শুধু নির্বাচনের আগে নয় বেশ কয়েক বছর ধরেই এমন হচ্ছে। নির্বাচনের সময় সব রাজনৈতিক দলকে পরিপূর্ণভাবে রাজনৈতিক কর্মকান্ড পরিচালনার সুযোগ দিতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ