প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

Very Very Important for BNP …

গোলাম মওলা রনি, ফেসবুক: বিধি মোতাবেক নির্বাচন কমিশন যখন যার আপিলের শুনানি করবেন ঠিক তখনই এজলাসে বসে নিজেদের সিদ্ধান্ত জানাবেন এবং সঙ্গে সঙ্গে সেই সিদ্ধান্তের সার্টিফায়েড কপি আবেদনকারীকে দিয়ে দিবেন যাতে সংক্ষুব্দরা হাইকোর্টে যেতে পারেন এবং প্রতিকার প্রাপ্তরা সংশ্লিষ্ট জেলা রির্টানিং কর্মকর্তাদের নিকট কমিশনের ইতি বাচক সিদ্ধান্ত পৌঁছে দিতে পারেন।

নির্বাচন কমিশন যদি চালাকী করে উপরোক্ত বিধির ব্যত্যয় ঘটায় তবে যে কেউ সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে হাইকোর্টে চলে আসতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপিল জমা দেয়ার রিসিভড কপি এবং সংক্ষুব্দ ব্যক্তির আবেদনই মহামান্য হাইকোর্ট মামলার গ্রাউন্ড হিসেবে বিবেচনায় নিবেন।

আগামী ৯ ই ডিসেম্বর মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন। ৬, ৭ ও ৮ই ডিসেম্বর শূনানী হবে। ৭ ও ৮ই ডিসেম্বর সরকারী বন্ধের দিন হলেও সংক্ষুব্দরা চেম্বার জজের আদালতে প্রতিকার পাবেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ