প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এক অসাধারণ আয়োজন

এম. নজরুল ইসলাম : গত ২৫ নভেম্বর ছিল কাজী এনায়েত উল্লাহ ইনু ভাইয়ের ৬০তম জন্মদিন। দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে তাঁর সহধর্মিনী নিদি উল্লাহ ইনু একটি অসাধারণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলেন।
ফ্রান্সের বিখ্যাত প্যারিসের আইফেল টাওয়ারের পাশ দিয়ে বহমান সিন নদীতে বিশাল জলযানে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে তিন শতাধিক অতিথির সঙ্গে আমিও আমন্ত্রিত ছিলাম। ফরাসী নাগরিকসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত বাঙালিরা সবাই কাজী এনায়েত উল্লাহ ইনু ভাইয়ের আপনজন। আইফেল টাওয়ারের পাশ থেকে আয়োজক ও অতিথিদের নিয়ে যাত্রা শুরু করে জলযানটি। দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলে আনন্দময় নৌভ্রমণ। মধ্যাহ্ন ভোজসহ নানা পদের সুস্বাদু খাবার ও পানীয়ের ব্যবস্থা রাখা ছিল। ছিল সঙ্গীত ও নৃত্যয়োজন। কাজী এনায়েত উল্লাহর শৈশব থেকে এযাবৎ কালের নানারকম কর্মকা-ের ছবি সম্বলিত প্রামাণ্যচিত্র বড় পর্দায় দেখানো হয়।
তিন পুত্রের জনক তিনি। আমাদের সবার মাঝে দাঁড়িয়ে সহধর্মিনী ও ছেলেদের সঙ্গে নিয়ে তিনি তাঁর ৬০তম জন্মদিনের কেক কাটেন।
অনুষ্ঠানে আমরা অনেকেই ইনু ভাই সম্পর্কে বক্তব্য রাখি এবং তাঁর সার্বজনীন মঙ্গল কামনা করি।
আমার দীর্ঘ প্রবাস জীবনে স্বদেশের বন্ধু-বান্ধব ছাড়াও অন্যান্য দেশের বন্ধুদের জন্মদিনসহ নানাধরনের অনুষ্ঠানে গিয়েছি। কিন্তু প্যারিসের সিন নদীতে নৌভ্রমণের মধ্যে অনুষ্ঠিত জন্মদিনের এই অনুষ্ঠানটি ছিল আমার জীবনের এক ভিন্ন অভিজ্ঞতা।
২০০৯ সাল থেকে আমি তাঁকে চিনি। ঐবছরের এপ্রিল মাসে একদিন তিনি আমাকে ফোন করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে কিছু লেখা তাঁকে পাঠাতে বলেছিলেন। সে মতে আমি লেখা পাঠিয়েছিলাম। এরপর থেকে ইনু ভাইয়ের সঙ্গে আমার যোগাযোগ অব্যাহত আছে। আমার সঙ্গে যখনই তাঁর কথা হয়, প্রতিবারই তিনি বঙ্গবন্ধু প্রসঙ্গে কথা বলেন। বাংলাদেশ, দেশের মানুষ ও প্রবাসী বাঙালিদের কল্যাণের প্রশ্নে কথা বলেন। কেবল কথাই নয় প্রবাসী বাঙালিদের কল্যাণে বিভিন্নভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।
কাজী এনায়েত উল্লাহ ইনু ফ্রান্স-বাংলাদেশ ইকোনমিক চেম্বারের প্রেসিডেন্ট, অল ইউরোপিয়ান বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের জেনারেল সেক্রেটারি এবং ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ অর্গানাইজেশনের প্রেসিডেন্টসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত।
ইনু ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলে আমার মনে হয়েছে সমষ্টির মঙ্গলচিন্তায় তিনি নিজেকে নিমজ্জিত রেখেছেন। তাঁর প্রাণময়তা প্রবাসী বাঙালিদের উজ্জীবিত করে, নতুন প্রত্যাশার সৃষ্টি করে। মেধা, দৃঢ়তা ও অমায়িকতার গুণে আজ বহু উঁচুতে তিনি। বঙ্গবন্ধু প্রেমিক এই প্রত্যয়দীপ্ত মানুষটিকে অশেষ অভিনন্দন জানাই। তাঁর সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

লেখক : অস্ট্রিয়া প্রবাসী লেখক, মানবাধিকারকর্মী ও সাংবাদিক

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ