প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফুল শিল্পকে এগিয়ে নেয়ার জন্য সরকারের উদ্যোগ নিতে হবে: ডিসিসিআই

রমজান আলী : ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ (ডিসিসিআই) সভাপতি আবুল কাসেম খান বলেন, ফুল শিল্প খাতকে শিল্পখাত হিসেবে রুপান্তর করার জন্য সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে। এছাড়া প্রয়োজনীয় নীতিমালা প্রণয়ন ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন করার জন্য সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে। তাহলে শিল্পখাত হিসেবে অপার সম্ভাবনা তৈরি হবে বাংলাদেশে।

ইউএসএইড’স এগ্রিকালচারাল ভ্যালু চেইনস্ (এভিসি) প্রকল্প এবং বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটি’র সহযোগিতায় ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) আগামী ৬-৮ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তিনদিনব্যাপী “ইন্টারন্যাশনাল ফ্লাওয়ার এক্সিবিশন অ্যান্ড কনফারেন্স ২০১৮”-এর আয়োজন করেছে। এ উপলক্ষে আজ ডিসিসিআই অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ২০১৮ সালে বৈশ্বিক বাজারে ফুলের রপ্তানির বাজার মূল্য প্রায় ৪৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে বাংলাদেশ ফুল রপ্তানির পরিমাণ ছিল প্রায় ৮৬ হাজার মার্কিন ডলার, যেখানে বর্তমানে সার্বিকভাবে ফুলের বাজার মূল্য ৮ হাজার কোটি টাকা থেকে ১২ হাজার কোটি টাকা।

তিনি বলেন, এ সম্ভাবনাময় শিল্পকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য এর সাথে জড়িত কৃষক ও উদ্যোক্তাদের স্বল্প হারে ঋণ সুবিধা প্রদান, আধুনিক প্রযুক্তি প্রাপ্তি ও ব্যবহারের প্রশিক্ষণ প্রদানে, উন্নত ও নতুন নতুন জাতের বীজ সরবরাহ করা, ওয়্যারহাউজ ও কোল্ডস্টোরেজ নির্মাণসহ অবকাঠামো উন্নয়ন করতে হবে।

এছাড়া তিনি আরো বলেন, তিন দিনব্যাপী মেলায় প্রায় ৭০টি স্টলে দেশি-বিদেশি উদ্যোক্তা তাদের ফুল ও ফুল সংশ্লিষ্ট পণ্য প্রদর্শন করবেন। যেখানে থাইল্যান্ড, ভারত এবং নেপালের ১২টি স্টল থাকবে, পাশাপাশি ফ্লাওয়ার প্যারেড, বর্ণিল ফুলের বিভিন্ন আঙ্গিকে প্রদর্শনী এবং ইনস্টলেশন, শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, পুতুলনাচ, একক ও দ্বৈত সংগীতানুষ্ঠান, দলীয় নাচ এবং বিশেষ ত্রিমাত্রিক ভিডিওচিত্রের প্রদর্শনী থাকবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এ মেলা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা)’র নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন, ইউএসএইচ’র কনসালটেন্ট এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব আনোয়ার ফারুক বলেন, বর্তমানে ২৩টি জেলায় প্রায় ১০ হাজার হেক্টর জমিতে ৫০ জাতের ফুলের বাণিজ্যিক চাষাবাদ হচ্ছে এবং স্থানীয়ভাবে ফুলের বাজার মূল্য প্রায় ১ হাজার কোটি টাকা।

উপস্থিত ছিলেন ডিসিসিআই সহ-সভাপতি কামরুল ইসলাম, এফসিএ, সহ-সভাপতি রিয়াদ হোসেন, পরিচালক হোসেন এ সিকদার, ইমরান আহমেদ, মামুন আকবর, মোহাম্মদ বাশীর উদ্দিন, এস এম জিল্লুর রহমান, ইউএসএইড’স এগ্রিকালচারাল ভ্যালু চেইনস্ (এভিসি) প্রকল্পের চিফ অব পার্টি লি রোজনার, ডেপুটি চিফ অব পার্টি বানি আমিন, বাংলাদেশ ফুল ব্যবসায়ী সমিতির প্রতিনিধিবৃন্দ এবং বিভিন্ন গণমাধ্যম থেকে আগত সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত