প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মন্ত্রী- এমপিদের প্রতিদিনই আচরণবিধি লঙ্ঘন করছেন : বজলুর রশীদ ফিরোজ

রফিক আহমেদ : বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল- বাসদ কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজ বলেছেন, সরকারি দলের মন্ত্রী- এমপিরা এখন পূর্বের মতো একইভাবে চলাফেরা করছেন। নির্বাচনের আচরণ বিধি লঙ্ঘনের ঘটনা প্রতিদিন ঘটে চললেও নির্বাচন কমিশন এ ক্ষেত্রে নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছে। তদুপরি ২ ডিসেম্ভব মনোনয়নপত্র বাচাইয়ের মাধ্যমে বিরোধী প্রার্থীর গণহারে মনোনয়নপত্র বাতিলের ঘটনায় রিটার্নিং কর্মকর্তাদের স্বেচ্ছাচারিতার প্রকাশ ঘটেছে। যা জনগণের কাছে নির্বাচন নিয়ে ইসিকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। রোববার রাজধানীর তোপখানা রোডস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে একান্ত সাক্ষাতে তিনি এ কথা বলেন।

বাসদ কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে এখন জনমনে সংশয় ও আশঙ্কা আরও ঘনীভূত হয়েছে। আমরা মনে করি না নির্বাচনের মধ্যদিয়ে জনজীবনে সমস্যার সমাধান হবে। তারপরও গণআন্দোলনের অংশ হিসেবে আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে থাকি। এবারেও আন্দোলনের অংশ হিবেবে আমরা নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করেছি। আমরা এখনো আশা করি গণদাবির প্রতি শ্রদ্ধা দেখিয়ে ইসি সংবিধানের প্রদত্ত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করবে।

তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে জনগণ যাতে অবাধ ও নিরপেক্ষ পরিবেশে তাদের পছন্দ মতো প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করতে পারে- সেই পরিবেশ ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করবে। অন্যথায় ইতিহাস তাদের ক্ষমা করবে না। আমরা একই সাথে দেশের সর্বস্তরের জনগণকে গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার রক্ষার দাবিতে সোচ্চার হওয়ার জন্য আহবান জানাচ্ছি। আমরা বামপন্থীরা গণতন্ত্র, ভোটাধিকার, শ্রমিক, কৃষক ও মেহনতী মানুষের ভাত, কাপড়, শিক্ষা ও কাজের দাবিতে আন্দোলন করে আসছি। আমাদের সেই আন্দোলন এখনো অব্যাহত আছে।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন গণতন্ত্রের একটি অন্যতম উপাদান। কারণ আমাদের সংবিধান অনুয়ায়ী জনগণ হলো রাষ্ট্রের মালিক। সেই জনগণ নির্বাচনের মাধ্যমে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচিত করে থাকে। সেই প্রতিনিধিরা সংবিধান অনুযায়ী জনগণের পক্ষে জনকল্যাণের জন্য দেশ পরিচালনা করবে- এটাই হওয়ার কথা। কিন্তু আমাদের অতীত অভিজ্ঞতা বলে দলীয় সরকারের অধীনে যে ৬টি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে তার কোনটিতেই ক্ষমতার পরিবর্তন হয়নি। ফলে এবারের নির্বাচন সরকার এবং নির্বাচন কমিশনের জন্যে একটি বড় চ্যালেঞ্জ।

সম্পাদনা- শাহীন চৌধুরী

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত