প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তথ্য গোপনের অপরাধে জনপ্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে মামলা করা যাবে: শাহ নেওয়াজ

কামরুল হাসান : সাবেক নির্বাচন কমিশনার মো: শাহ নেওয়াজ গত সোমবার ডিবিসি নিউজ চ্যানেলের এক টকশোতে বলেছেন, যদি কোন জনপ্রতিনিধি নির্বাচনী হলফনামায় সম্পদের কোন তথ্য গোপন করে তবে গোপন সম্পদের বিরুদ্ধে যে কোন ব্যক্তি মামলা করতে পারবে, এবং জনপ্রতিনিধি দোষী প্রমাণিত হলে তার জেল, জরিমানা এমনকি তার মনোনয়ন বা সংসদ সদস্য পদ বাতিল হতে পারে।

তিনি বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে প্রথম হলফনামার প্রচলন হয়। উচ্চ আদালতের আদেশ অনুসারে আটটি বিষয়ের উপরে প্রতিনিধিদের তথ্য দিতে হয়। মানুষ যাদেরকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে তদের অর্থের উৎস কি, এবং তার বর্তমান সম্পদের হিসাব নিকাশ জনসাধারণের সামনে উপস্থাপনের জন্য উচ্চ আদালত হলফনামার প্রচলন করেন। যার ফলাফলের উপর ভিত্তি করে জনগণ তার পছন্দের প্রতিনিধি নির্বাচন করবে।

হলফনামায় দেয়া তথ্যের সত্যতা যাচাই বাছাইয়ের দায়িত্ব কার এমন প্রশ্নের জবাবে সাবেক নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘এটা নির্বাচন কমিশনের কাজ না এবং তাদের এত সময়ও নেই।” তার মতে হলফনামায় স্বাক্ষর করে কেউ মিথ্যা বলে না, এটাই স্বাভাবিক। তবে যদি কেউ কোন ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ করে সে ক্ষেত্রে অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা হবে, শাস্তি হবে। তাহলে হলফনামা কেন? এমন পাল্টা প্রশ্নের জবাবে শাহ নেওয়াজ বলেন- হলফনামার আইনটাই এমন।

তবে তিনি মনে করেন এই আইনের ফলে জন প্রতিনিধিরা আরো অনেক সচেতন হয়েছে। এবং এটা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকে, যদি ওই প্রতিনিধির কোন তথ্য গোপন থাকে তবে স্ব-প্রণোদিত হয়ে যে কোন ব্যক্তি তার বিরুদ্ধে মামলা করতে পারে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ