প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিএনপিকে নির্বাচনী মাঠে রাখতে চায় আওয়ামী লীগ

সমীরণ রায়: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনীতির মাঠ এখন গরম। ইতোমধ্যে দলীয় মনোনীত প্রার্থীদের জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তারা যাচাই বাছাই করে বৈধতা দিয়েছেন। এতে অন্তত আওয়ামী লীগের ২৭৮ ও বিএনপির ৫৫৫জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্রের বৈধতা দেওয়া হয়েছে। তারপরেও বিএনপি প্রশ্ন তুলেছে, সরকারের নির্দেশে বিএনপি মনোনীত প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বিএনপির এমন অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। তবে দলটি বিএনপিকে নির্বাচনী মাঠে রেখেই অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন উপহার দিতে চায়।

জানা গেছে, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ বিএনপিকে বর্তমান দুরবস্থা ও চাপের মধ্যে রেখেই নির্বাচনী মাঠে রাখতে চায়। এরই অংশ হিসেবে বিভিন্ন কৌশল ঠিক করছে দলটি। এরমধ্যে নির্বাচনী প্রচারণার আগেই শেষ মুহূর্তের ভোটের মাঠ পর্যবেক্ষণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে আওয়ামী লীগ। এজন্য একটি টিমও গঠন করা হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মাধ্যমে ৩০০ আসনের সার্বিক চিত্রের প্রতিবেদন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে জমা দেবে ওই কমিটি। ওই প্রতিবেদনের ওপর নির্ভর করেই আরও কৌশলী হবে ক্ষমতাসীন দলটি।

এ সম্পর্কে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি দেশে-বিদেশে নালিশ করছে ‘সরকার নির্বাচন করতে দিচ্ছে না, কারসাজি করে আমাদের নির্বাচন থেকে দুরে সরে রেখেছে’। তাদের দেওয়া এই অপবাদ যাতে না ছড়াতে পারে সেজন্য বিএনপিকে নির্বাচনী মাঠে দেখতে চাই। তদের রেখেই অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চাই।

‘সরকারের নির্দেশে নির্বাচন কমিশন (ইসি) প্রার্থীদের মনোনয়ন বাতিল করছে’ বিএনপি নেতাদের এমন অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের বৈধ মনোনীত প্রার্থ ২৭৮ ও বিএনপির ৫৫৫ জন এখনো আছে? এখানে কম কোথায়? বিএনপি ঋণখেলাপী, দন্ডিতদের মনোননয়ন দিয়েছে। আসলে তাদের মনোনয়ন প্রক্রিয়াই পুতুল নাচের খেলা। সরকার কেন করবে? নির্বাচন কমিশন কি সরকারের? নির্বাচন কমিশন স্বাধীন ও কতৃত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। বরং বিএনপি নির্বাচনী পরিবেশ বিঘ্নিত করতেই নানা ষড়যন্ত্র করছে।

সম্পাদনা : বিশ্বজিৎ দত্ত

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ