Skip to main content

উন্নয়নের ঘাটতি পুরণে মূল ফ্যাক্টর এখন ভোটার

সাজিয়া আক্তার : ঢাকা-৪ আসনে ফ্যাক্টর প্রার্থী না ভোটার? কারণ এই আসন থেকে প্রধান ৩ দলের প্রার্থী জিতে এসেছেন আগের নির্বাচনগুলোতে। বুড়িগঙ্গার কূল ঘেঁষে পোস্তগোলা ও শ্মশানঘাট। ঢাকা দক্ষিণ সিটির কর্পোরেশনের আশেপাশে এলাকাগুলোর সমন্বয়ে ৭ টি ওয়ার্ড নিয়ে ঢাকা ৪ আসন। এখানে মোট ভোটার ২ লাখ ৪৬ হাজার। গেলো ১০ বছরে এখানেও উন্নয়নের পাশাপাশি রয়েছে অনেক ঘাটতিও। সূত্র : এটিএন নিউজ স্টিল, লোহা ও মনোহারি পণ্য থেকে শুরু করে শাড়ি, লুঙ্গিসহ বিভিন্ন জিনিসপত্রের কলকারখানা এই এলাকায়। যেখানে আছে দেড় লাখেও বেশি শ্রমিক। এদের বেশির ভাগেই এসেছেন মুন্সিগঞ্জ, শরিয়তপুর মাদারিপুর ও ফরিদপুর থেকে। তাদের মধ্যে অন্তত ৪০ হাজার ভোটার এই আসনের। ১৯৭০ সাল থেকে এ পর্যন্ত ১০ টি জাতীয় নির্বাচনে এ আসন থেকে ৪ বার জয় পায় আওয়ামী লীগ, তিনবার করে জয়ী হয় বিএনপি ও জাতীয় পার্টি। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থী জিতেছেন শেষ দু’বার। এবার এ আসনে প্রার্থীর নাম ঘোষণা দেয়নি আওয়ামী লীগ। বর্তমান সংসদ সদস্য জাতীয় পার্টি সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা তাই নিজেকে মহাজোটের প্রার্থী দাবি করছেন। আর বিএনপির প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য সালাউদ্দিন আহমেদ। তার ছেলে তানভীর আহমেদ রবিনকে রাখা হয়েছে বিকল্প প্রার্থী হিসেবে। স্থানীয় এলাকাবাসী বলছেন, যাকে আমরা আমাদের বিপদে-আপদে পাশে পাবো তাকেই ভোট দিবো। যাকে ভোট দিলে সমাজের সবার জন্য উপকার হবে তাকেই ভোট দেওয়া উচিত। তারা বলেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটির কর্পোরেশনের আশপাশ এলাকাগুলোতে বিভিন্ন সমস্যা লেগেই আছে। উন্নয়নের জন্য তেমন কিছু করা হচ্ছে না এখানে।