Skip to main content

মদরিচের খুশির দিনে অখুশি মেসি-রোনালদো

স্পোর্টস ডেস্ক : একটা পুরস্কার টানা ১০ বছর ধরে পেয়ে আসছেন মাত্র দু’জন! ব্যাপারটা মোটেও কম কথা নয়। ফিফা বর্ষসেরার পর ফুটবলের অন্যতম মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার ব্যালন ডি’অর দশ বছর সমানভাবে ভাগাভাগি করে নিয়েছেন মেসি ও রোনালদো। তবে দীর্ঘ ১০ বছর পর তাদের রাজত্বে হানা দিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়েশিয়ান তারকা লুকা মদ্রিচ। দীর্ঘ দশ বছর পর তৃতীয় কোনো ব্যক্তির হাতে উঠলো ব্যালন ডি’অরের ট্রফি। লুকা মদরিচের কাছে স্থান হারিয়ে ব্যাপারটিই মেনে নিতে পারছেন না ফুটবল বিশ্বের মহা দুই তারকা এলএম টেন ও সিআর সেভেন! মদরিচের এই খুশিতে ভীষণ অখুশি বার্সা ও জুভেন্টাসের এ দুই তারকা। ব্যালন ডি’অর পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে অতিথি আসনে সামনে দুটি সিট ছিল ‘ফাঁকা’। যেখানে বসার কথা ছিল রোনালদো ও মেসির। কিন্তু কোথায় ছিলেন তারা? মদরিচের পুরস্কার পাওয়ায় অখুশি হয়েই হয়তো তারা এই অনুষ্ঠান বর্জন করেছেন। [caption id="attachment_758604" align="aligncenter" width="640"] স্বপ্নের ব্যালন ডি’অর জয়ের পর ট্রফিতে চুমু দিচ্ছেন লুকা মদরিচ, সঙ্গী হলেন স্ত্রী-সন্তানরাও। ছবি : ইন্টারনেট[/caption] তালিকায় পঞ্চমস্থানে থাকা মেসি তো ফুরফুরে মেজাজে সময় কাটান পরিবারের সঙ্গে। বার্সেলোনা অধিনায়ক ইন্সটাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করেন। যেখানে দেখা যায়, তিনি তার দুই ছেলে থিয়াগো ও মাতেওকে নিয়ে আনন্দে সময় কাটাচ্ছেন। মদরিচের কাছে বিশাল ব্যবধানে হেরে যাওয়া রোনালদোর অবশ্য কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে তার দুই বোন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কটুকথায় ধুয়ে দিয়েছেন। এলমা অ্যাভেইরো লিখেন, ‘আমরা নষ্ট ও পঁচে যাওয়া এক বিশ্বে বসবাস করছি।’ আরেক বোন কাতিয়া রোনালদোর পূর্বের ব্যালন ডি’অর জয়ের একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়...যে ফুটবলটাও বোঝে।’ এদিকে অনুষ্ঠানে আসেননি এই প্রজন্মের আরেক তারকা নেইমারও। প্যারিস সেন্ট জার্মেইতে খেলার ফলে এই প্যারিসেই তার অবস্থান ছিল। কিন্তু একই সময় কম্পিউটারে ব্রাজিলিয়ান এই সেনসেশন ‘কল অব ডিউটি’ গেমস নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছিলেন।