প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

টেকনাফে পৃথক অভিযানে ৫০হাজার ইয়াবা ও বিয়ার উদ্ধার

ফরহাদ আমিন, টেকনাফ : কক্সবাজারের টেকনাফে বিজিবি পৃথক অভিযান চালিয়ে ৫০হাজার ইয়াবা ও ১হাজার ২৭৫ক্যান বিয়ার উদ্ধার করেছে। এসময় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। টেকনাফ ২বিজিবি’র অধিনায়ক লেঃকর্ণেল আছাদুদ জামান চৌধুরী জানান, ৪ ডিসেম্বর মঙ্গলবার ভোরে সাবরাং ইউপিস্থ জিন্নাখাল এলাকা দিয়ে ইয়াবার একটি বড় চালান মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে।

উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ সাবরাং বিওপিতে কর্মরত সুবেদার লাল মিয়ার নেতৃত্বে একটি টহলদল বর্ণিত এলাকায় দ্রুত গমন করে। কিছুক্ষণ পরে কয়েকজন লোককে জিন্নাখাল হতে আসতে দেখে অপেক্ষারত থাকে। আকষ্মিক বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি লক্ষ্য করা মাত্রই উক্ত ব্যাক্তিরা অন্ধকারের সুযোগে দৌড়ে পাশ্ববর্তী গ্রামে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে টহলদল বর্ণিত এলাকায় তল্লাশি করে পলিথিন দ্বারা মোড়ানো পরিত্যক্ত অবস্থায় ৩০হাজার ইয়াবা ও ১হাজার২৭৫ক্যান বিদেশী আন্দামান গোল্ড বিয়ার উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

উদ্ধারকৃত ইয়াবা ও বিয়ারের মূূল্য ৯৩লাখ ১৮হাজার ৭৫০টাকা। উদ্ধারকৃত বিয়ার ও ইয়াবা  ট্যাবলেটগুলো ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে, যা পরবর্তীতে উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।

এছাড়া একইদিনে  হ্নীলা বিওপির নায়েক মোঃ ছাবির উদ্দিনের নেতৃত্বে একটি টহলদল হ্নীলা ইউপিস্থ ওয়াব্রাং এলাকায় বিশেষ টহলে গমন করে। ভোর ৫টার দিকে ওয়াব্রাং মৌলভীবাজার লবন গুদামের পাশ দিয়ে দুইজন ব্যক্তিকে একটি ব্যাগ হাতে করে আসতে দেখে টহলদল অপেক্ষারত থাকে। বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি লক্ষ্য করা মাত্রই  উক্ত ব্যাক্তিরা দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে টহলদল তাদের পিছু ধাওয়া করে।

একপর্যায়ে ইয়াবা পাচারকারীর হাতে থাকা ব্যাগটি ফেলে দিয়ে অন্ধকারের সুযোগে পাশ্ববর্তী গ্রামে পালিয়ে যায়। পরে পাচারকারী ফেলে যাওয়া ব্যাগটি খুলে গণনা করে ৬০লাখ টাকার মূল্য মানের ২০হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। উদ্ধারকৃত  ইয়াবা ট্যাবলেটগুলো ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে, যা পরবর্তীতে উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ