Skip to main content

পেসারদের কাঠগড়ায় তুলছেন ওয়ালশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের মাটিতে দুই টেস্ট জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করেছে বাংলাদেশ দল। দলের হয়ে দ্বিতীয় টেস্টে খেলেনি কোনো পেসার। প্রথম টেস্টের একাদশে থাকলে টাইগার পেসাররা প্রত্যাশা অনুযায়ী পারফর্মেন্স করতে ব্যর্থ হয়েছেন। তাই বাধ্য হয়েই বেশি স্পিনার খেলাতে হচ্ছে বাংলাদেশ দলকে। সফলতাও আসছে। উইন্ডিজের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টে কোনো পেসার না খেলিয়ে চার স্পিনার নিয়ে বাজিমাত করেছে টাইগাররা। দেশের মাটিতে টাইগার পেসারদের পারফর্মেন্সে হতাশ বাংলাদেশ দলের পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ। ওয়ালশের ভাষায়, ‌'কেউই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি, যখন বাংলাদেশে খেলা হয়। কিন্তু দেশের বাইরে যখন পেস বোলিং বান্ধব কন্ডিশনে খেলা হয় তখন সবার আগে দলে জায়গা পাওয়ার তাড়না থাকা উচিত। আমাদের বেশ কয়েকটি ইনজুরি সমস্যা ছিল কিন্তু আমি মনে করি আমরা দেশের বাইরে পর্যাপ্ত টেস্ট পেয়েছি। সেখানে বোলারদের তৈরি থাকতে হবে। এবং তাদের উইকেট নেয়ার তাড়না থাকতে হবে।' আসন্ন নিউজিল্যান্ড সফরে পেস বোলিং বান্ধব কন্ডিশনে টাইগার পেসাররা নিজেদের প্রমাণ করতে পারবেন বলেই বিশ্বাস ওয়ালশের। কোনো বিদেশ সফরেই টাইগার পেসাররা নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। এটাই এখন চিন্তার বড় কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। 'আশা করছি আমরা যখন নিউজিল্যান্ড যাবো, পেসাররা আরও ভালো সুযোগ পাবে। আমরা সেখানে ভিন্ন উইকেট পাবো এবং তাদের সেই সুযোগটা নিতে হবে। কোনো বিদেশ সফরেই আমরা এই সুযোগটা নিতে পারিনি এবং এটাই আমার বড় চিন্তার কারণ।' পেসাররা সুযোগ না পেলেও ঢাকা টেস্ট তিন দিনের মধ্যে জিতে দারুণ চমক দেখিয়েছে বাংলাদেশ। চার স্পিনার খেলানোর বিষয়টি খোলাসা করে ওয়ালশ বলেছেন, এটা শুধুমাত্র একটি কৌশল ছিল ম্যাচ এবং সিরিজ জয়ের জন্য। ঢাকা টেস্টে টাইগারদের পারফর্মেন্সের প্রশংসা করেছেন তিনি। 'কৌশলগত ভাবে আমরা একটি টেস্ট ও একটি সিরিজ জেতার জন্য বেশি স্পিনার খেলাতে চেয়েছিলাম। এটা অর্জন হয়েছে। চূড়ান্ত লক্ষ্য পূরণ হয়েছে। ছেলেরা দারুণ খেলেছে। আমি জানি জয়টা সহজ দেখা যাচ্ছিল কিন্তু দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দুই দিন অনেক গুরুত্বপূর্ণ ছিল। বাংলাদেশ খুব ভালো খেলেছে এবং বিজয়ী হয়েছে। আমি মনে করি এটি দেখিয়েছে যখনই সুযোগ দেয়া হবে, আপনাকে ভালো করতে হবে।'