প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রোহিঙ্গা সহায়তার নামে এনজিওগুলোর অর্থ জালিয়াতি !
বিদেশিদের দৈনিক হাতখরচ ২ কোটি টাকা !

আসিফুজ্জামান পৃথিল : রোহিঙ্গাদের জন্য আসা বিপুল অনুদানের সিংহভাগই ব্যয় হচ্ছে কক্সবাজারে কাজ করা আন্তর্জাতিক এনজিওগুলোর ভরণপোষনে! অধিকাংশ এনজিও’র পরিচলন ব্যয় ত্রাণ খরচের চাইতে ৫ গুন পর্যন্ত বেশি! এই নিপীড়িত মানুষগুলো বেশকিছু বিদেশীর জন্য লোভনীয় চাকরির দুয়ার খুলে দিয়েছে। নিউ নেশন

শরণার্থী সহায়তার জন্য প্রচুর অর্থ লাভ হলেও এনজিও গুলোর এই শরণার্থীদের দৈনন্দিন প্রয়োজন মেটানো, কর্মসংস্থান, বাসস্থান, পানি এবং পয়:নিস্কাশন নিয়ে কোন দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনাই নেই। এনজিওগুলো তাদের ফেরত পাঠাতেও কোন ব্যবস্থাই নিচ্ছেনা। কারণ এই শরণার্থীরা যতদিন বাংলাদেশে অবস্থান করবে এনজিওগুলো অর্থনৈতিকভাবে ততটাই লাভবান হবে।

একটি সাম্প্রতিক গবেষণায় জানা গিয়েছে কক্সবাজারের এনজিওগুলোতে প্রায় ৩ হাজার নিবন্ধিও বিদেশী কাজ করছে। গড়পড়তাভাবে প্রতিটি বিদেশী কর্মী দৈনিক খরচবাবদ কমবেশি ২৫ হাজার টাকা পেয়ে থাকেন। এছাড়াও তারা আলাদা বেতন পান। তাই তাদের হাতখরচের পেছনে দৈনিক ব্যয় কমপক্ষে ২ কোটি টাকা! যা স্থানীয় এনজিওগুলোর পরিচলন ব্যয় এর ৫ গুণ বেশি! বেশিরভাগ আন্তর্জাতিক এনজিওর কর্মী সংক্যঅ অপ্রতুল কিন্তু খরচ পাহাড়সম। তারা বিপুল পরিমাণ অনুদান সংগ্রহ করেন। এর ৮০ শতাংশ ব্যয় হয় কর্মীদের পেছনে, বাকি ২০ শতাংশ রোহিঙ্গাদের পেছনে।

এবছরের জানুয়ারি থেকে দাতারা ৬৮ কোটি ২০ লাখ ডলার সহায়তা দিয়েছেন। পরিবারপ্রতি তাদের দান ৩ হাজার ২৮৪ ডলার। যা প্রতিটি পরিবারের প্রয়োজনীয় ব্যয় নির্বাহে যথেষ্ট। কিন্তু এনজিওকর্মীদের আরামদায়ক জীপনযাপনের জন্য তারা প্রয়োজনীয় সহায়তাই পাচ্ছেন না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ