প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সার্কদেশের নারী-শিশু নির্যাতন ভুটান থেকে মনিটরিং

তরিকুল সুমন: দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে নারী ও শিশু পাচারসহ সব ধরনের নির্যাতন বন্ধসহ প্রতিরোধে এগিয়ে এসেছে দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা (সার্ক)। সার্ক ডেভেলপমেন্ট ফান্ডের উদ্যোগে সার্কভুক্ত দেশসমূহে টোল ফ্রি হেল্প লাইন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ফলে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপ ও আফগানিস্তান যৌথভাবে কাজ করবে। এ জন্য ৪০ লাখ মার্কিন ডলারের প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

সার্ক দেশগুলোর নারী ও শিশুদের সহায়তায় তৈরি এ হেল্পলাইন প্রকল্পের লাইন ডিরেক্টর ড. আবুল হোসেন এই প্রতিবেদককে জানান, তার সার্বিক তত্ত্বাবধানে এ হেল্প লাইন সেবা সার্ভিস চালু করা হচ্ছে। এ সেলের অফিস ভুটানে। ভুটানে সব দেশেরই প্রতিনিধি রয়েছে। ভুটান থেকেই সবগুলো দেশের সার্বিক পরিস্থিতি মনিটরিং এবং তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। পাশাপাশি যেসব দেশে এই সার্ভিসটি নেই সেবস দেশে এটি চালু করার জন্য সকল ধরণের সুবিধা দেয়া হচ্ছে। ফলে নারী ও শিশু নির্যাতন হলে তাৎক্ষণিকভাবে এ হেল্প লাইনের মাধ্যমে প্রতিকারের ব্যবস্থা গ্রহণ করার হচ্ছে। দেয়া হচ্ছে স্বক্ষমতা বৃদ্ধিও জন্য পরামর্শসহ ইকুইপমেন্টসহ প্রয়োজনীয় কারিগরি সহায়তা।

তিনি আরো বলেন, আমরা দেখেছি পাচার হওয়ার পরে উদ্ধার করা নারীদের আর স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনা যায় না। অনেক সময়ই পরিবার বা সমাজ তাদের মেনে নেয় না। এ ধরনের সমস্যা যেন না ঘটে তাই এ হেল্পলাইন আমাদের একটি প্রচেষ্টা। এতে সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে নারী ও শিশুর অধিকার সুরক্ষা বলয় আরও কার্যকর হবে। এ প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশের মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে ন্যাশনাল হেল্পলাইন সেন্টারের কার্যক্রম আরও শক্তিশালী করা, হেল্পলাইনের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি নিয়োগ, তাদের প্রশিক্ষণ দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের এপ্রিলে ভারতের নয়া দিল্লিতে সার্কের এক ফোকাস গ্রুপের সভায় এই টোল ফ্রি হেল্প লাইন প্রকল্পের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যেখানে বাংলাদেশকে প্রধান করে বাস্তবায়ন দল গঠন করা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ