প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শম্ভুকে বাদ দিয়ে কবিরকে চায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ

জিয়াউদ্দিন রাজু : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বরগুনা-১ (সদর-আমতলী-তালতলী) আসনে ৫ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুকে বাদ দিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবিরকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবি জানিয়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগসহ সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতারা।

সোমবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বাসভবনে গিয়ে জেলা আওয়ামী লীগসহ সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের প্রায় ৭০ জন নেতা এ দাবি জানান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুল আহসান মহারাজ, সাবেক সহ-সম্পাদক এস এম মশিউর রহমান শিহাব, সদস্য গোলাম সরোয়ার ফোরকান, আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম দেলোয়ার হোসেন, তালতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজাউল কবির জমাদ্দার, সাধারণ সম্পাদক তৌফিকুজ্জামান তনু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কে এম আব্দুর রশিদ, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি আজিজুল হক স্বপন, বরগুনা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুর রহমান নান্টুসহ অনেকে।

আওয়ামী লীগও স্থানীয় নেতাদের দাবি ও কোন্দলের বিষয়টি মাথায় রেখে ওই আসনে দুইজনকে মনোনয়নের চিঠি দিয়েছে। এরা হলেন বর্তমান সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির। মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে ওই আসনে কে হচ্ছে নৌকার প্রার্থী।

এবিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সভাপতি কামরুল আহসান মহারাজ বলেন, আমরা জাহাঙ্গীর কবিরের সাথে আছি। তাই তৃণমূল থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার এমপির পরিবর্তে নতুন মুখ চায় স্থানীয় জনগণসহ নেতাকর্মীরা। আমরা তাদের প্রতিনিধি হিসাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের সাথে দেখা করে আমাদের কথা জানিয়েছি।

বৈঠকে উপস্থিত একটি সূত্র জানিয়েছেন, বরগুনা-১ আসনের স্থানীয় নেতাদের ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ওই আসনে দুজনকে মনোনয়ন দেওয়ার পরে আমাদের কাছে যে সমস্ত খবর এসেছে, সেগুলোর নেত্রীকে অবহিত করা হয়েছে এবং নেত্রীও এগুলো জানেন। আপনারা আশ্বস্ত হন নেত্রী নিশ্চয়ই দল রক্ষার জন্য ভাল সিদ্ধান্ত দেবেন।

এদিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হ্যাটট্রিক জয়ের মিশনে বিদ্রোহী প্রার্থীদের দমন করতে হার্ডলাইনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আওয়ামী লীগ। গত রোববার থেকে একই আসনে দুই জনকে মনোনয়নের চিঠি দেওয়া প্রার্থীদের মধ্যে একজনকে রেখে আরেকজনের কাছে ইতোমধ্যে হাইকমান্ড থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহারের নির্দেশনা যাওয়া শুরু হয়েছে।

এবার আওয়ামী লীগ থেকে ৩০০ আসনের মধ্যে ২৬৪টি আসনে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন জমা দিয়েছে। বাকি ৩৬টি আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে কেউ মনোনয়নপত্র জমা দেয়নি। এই ২৬৪টি আসনের মধ্যে ২৪৭ টিতে আওয়ামী লীগ একক প্রার্থী দিয়েছে এবং বাকি ১৭টি আসনে দুইজন করে প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। আর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে মোট ২৮১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। ইসির ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ২রা ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের পর ৯ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সুযোগ রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত