প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ষড়যন্ত্র করে আমার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে: হিরো আলম

মহিব আল হাসান : হুট করেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া আশরাফুল ইসলাম আলম ওরফে হিরো আলম একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী হন। কিন্তু নির্বাচনের আগেই তার স্বপ্ন বিলিন হয়ে যায় মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে। কিন্তু আশা না ছেড়ে আপিল করেছেন তিনি।

সোমবার নির্বাচন কমিশনে আপিল করেন হিরো আলম। সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ দেশের রাজারা চায় না, প্রজারা রাজা হোক। এদেশের মন্ত্রিরা চায় না কোনও সাধারণ মানুষ এমপি হোক। তারা সবসময় চায় তাদের বউ,সন্তান ও আত্মীয়রা এসকল পদে বহাল থাকুক। আর এ কারণে আমাকে তারা মনোনয়ন দিবে না। ষড়যন্ত্র করে আমার মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন বড় কর্মকর্তারা।

এ সময় নির্বাচন কমিশনের ভবনের নিচে মানুষের ভিড় জমে। অনেককে দেখা যায় সেলফি তুলতে। নির্বাচন কমিশনের অনেক কর্মকর্তাও ওপর থেকে নিচে নেমে আসেন। সিসি ক্যামেরায় নিচে এত ভিড় দেখে সংসদের কর্মকর্তারা খোঁজ নেন কেন এতো ভিড়?

প্রার্থী হওয়ার লড়াই চালিয়ে যাবেন কিনা-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি জিরো থেকে হিরো, জিরো থেকে এতদূর এসেছি। আমি অবশ্যই লড়াই চালিয়ে যাব। শেষ পর্যন্ত আমি বীরের মত লড়াই করে যাব। পাই আর না পাই, কারও কাছে মাথা নত করব না।

এ বিষয়ে হিরো আলমের সাথে যোগাযোগ করা হলে আমাদের সময় ডট কমকে বলেন, আমার মনোনয়নপত্র ইচ্ছাকৃতভাবে বাতিল করা হয়েছে। দশ ভোটারের মধ্যে নাকি ভুল রয়েছে। কিন্তু রাতের বেলা যখন জানানো হয় তখন রিটার্নিং কর্মকর্তা নাকি সাতজন রিয়েল পেয়েছেন। তিনজন রিয়েল পাননি। এরপর রাতে যখন কাগজ আমাকে হাতে দেওয়া হয় তখন জানতে পারি রিটার্নিং অফিসার লিখেছেন ১০ ভোটারের দেয়া তথ্য সবই ভুল।

হিরো আলম জোর দিয়ে বলেন, আমার মনোনয়নপত্রে কোনও ভুল ছিল না। রিটার্নিং অফিসার বলেছেন ভোটারদের শতকরা ১ ভাগ ভোটারের দেয়া তথ্যতে ভুল আছে। অবশ্যই ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। যারা আমার বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন, তারা সবাই একজোট হয়ে ষড়যন্ত্র করে আমার প্রার্থিতা বাতিল করেছেন। ওই এলাকায় খোঁজ নিয়ে দেখেন- হিরো আলম, হিরো আলম বলে একটা আওয়াজ ওঠে গেছে। এই আওয়াজ ওঠার কারণে সব প্রার্থী আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।

তিনি আরও বলেন, ষড়যন্ত্র যে হয়েছে তার প্রমাণ একবার বলল সাতটা ভুয়া, পরে কাগজে দিল পাঁচটা ভুয়া। এতে প্রমাণ হয় অবশ্যই আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হয়েছে।

প্রসঙ্গত, পল্লী বন্ধু এইচ এম এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পাটির ‘লাঙ্গল’ মার্কার মনোনয়ন না পেয়ে ওই আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন ডিস ব্যবসায়ী থেকে তারকা বনে যাওয়া হিরো আলম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ