প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হবিগঞ্জে ড. রেজা কিবরিয়া ও এমপি কেয়া চৌধুরীসহ ৭জনের মনোনয়নপত্র বাতিল

আশরাফুল ইসলাম কহিনুর, হবিগঞ্জ : হবিগঞ্জে সংরক্ষিত আসনের এমপি আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী ও সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়ার ছেলে ড. রেজা কিবরিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। তারা দু’জনই হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনের প্রার্থী। ড. রেজা কিবরিয়া গণফোরামের মনোনীত প্রার্থী এবং এমপি কেয়া চৌধুরী স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। এছাড়াও আরও ৬জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

রোববার সকালে হবিগঞ্জের ৪টি আসনের মধ্যে ২টি আসনের রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ যাচাই-বাছাই শেষে ৭জনের প্রার্থিতা ও মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন।

রিটার্নিং অফিসার জানান, সিটি ব্যাংকের ক্রেডিট ডিভিশন থেকে খেলাপির তালিকায় ড. রেজা কিবয়ার নাম থাকায় তার প্রার্থীতা বাতিল করা হয়।

অপরদিকে, হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় হবিগঞ্জ-সিলেট সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। হবিগঞ্জ-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী অধ্যাপক মো. আব্দুল হান্নান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আবু হানিফা আহমদ হোসেন, ইসলামী ফ্রন্ট বাংলাদেশের মোহাম্মদ বদরুর রেজা ও বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের জুবায়ের আহমেদ ও হবিগঞ্জ-২ আসনে বিএনপির প্রার্থী জাকির হোসেনের মনোনয়নপত্রের হলফ নামায় স্বাক্ষর না থাকায় তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

জেলা রিটার্নিং অফিসার জানান, যাদের প্রার্থিতা ও মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে তারা সবাই আপিলের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

এ ব্যাপারে মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ার বিষয়ে এক বিবৃতিতে ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, ‘আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদীয় আসন ২৩৯ হবিগঞ্জ-১ এ গণফোরাম মনোনীত প্রার্থী হিসেবে আমি আমার মনোনয়নপত্র জমা দেই। কিন্তু হবিগঞ্জ জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইকালীন আমার সিটি ব্যাংক ইস্যুকৃত একটি ক্রেডিট কার্ডের প্রায় সাড়ে ৫ হাজার টাকা বকেয়া বিল পরিশোধ না করার অজুহাতে আমার মনোনয়নপত্র বাতিল করে দেন।’

বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন দেশের বাইরে কর্মরত ছিলাম বিধায় বিলটি যথাসময়ে পরিশোধ করা হয়নি। ইতোমধ্যে বকেয়া বিলটি পরিশোধ করা হয়েছে। আমরা রিটার্নিং কর্মকর্তার এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আপনাদের ধৈর্য ধরে পাশে থাকার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ।’

এমপি আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী বলেন, ‘এটা অনিচ্ছাকৃত ত্রুটি। আমার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়নি। সংশোধন করে আফিল করার জন্য বলেছেন। আমি শীঘ্রই আফিল করব।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত