প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এই জনপদের শ্রেষ্ঠ অর্জন হলো তারামন বিবির একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ : নারী সংহতি

রফিক আহমেদ : নারী সংহতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তাসলিমা আখতার ও সাধারণ সম্পাদক অপরাজিতা দেব বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস কেবল পুরুষের বীরত্ব আর নারীর সমভ্রমহানির ইতিহাস নয়। কিংবা শুধু বীর বাঙালির অস্ত্র ধরার ইতিহাসও নয়। বীর মুক্তিযোদ্ধা তারামন বিবির এ জনপদে শ্রেষ্ঠ অর্জন একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ। শনিবার এক যৌথ বিবৃতিতে নারী সংহতির নেতৃদ্বয় তার প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করেন।

নেতৃদ্বয় বলেন, এই বিজয়ের মাস ডিসেম্বরের প্রথম দিন মুক্তিযোদ্ধা তারামন বিবির মৃত্যুর খবরে নারী সংহতি গভীরভাবে শোকার্ত। তাঁকে হারিয়ে বাংলাদেশ আজ শোকে মুহ্যমান। ইতিহাসে রয়েছেন সে সময়ের কিশোরী তারামন বিবি, যিনি মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি বাহিনীর খবর সংগ্রহ করা, তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করার মতো অসীম সাহসিকতা দেখিয়েছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য রান্না করা, তাঁদের অস্ত্র লুকিয়ে রেখে সহযোগিতা করেছেন তারামন বিবি। কিন্তু দুর্র্ধষ সেই কিশোরীর অসীম সাহসিকতার জন্য স্বীকৃতি দিতে রাষ্ট্রের সময় লেগেছে ২২ বছর।

নেতৃদ্বয় বলেন, নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকল মানুষ ও সকল জাতিসত্তার সংগ্রাম ও ইতিহাসের সমান স্বীকৃতি দেয়া ও তাকে ধারণ করা জরুরি। আমরা নারী সংহতি নিজেদের সেই ইতিহাসের উত্তরসূরী মনে করি। সকল মুক্তিযোদ্ধার সংগ্রামের প্রেরণাকে ধারণ করে আমরা পাহাড়-সমতলে চলমান সকল নিপীড়নের বিরুদ্ধে লড়াই-সংগ্রাম চালিয়ে যাব।

নেতৃদ্বয় আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের আকাঙ্খার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করতে হলে সকল মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। বিশেষ করে ঘরে-বাইরে-শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে-পাড়ায়-মহল্লায়-কর্মস্থলে-ক্রীড়াঙ্গণে সর্বত্র নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। এর মধ্য দিয়েই তারামন বিবিসহ সব মুক্তিযোদ্ধার প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা জানানো সম্ভব।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ