প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নোটারি লাইসেন্স নেই বাদ গেলো প্রার্থীর মনোনয়ন!

মাহফুজ নান্টু: নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে হলফ নামা লিখে প্রার্থী হয়েছেন সাবেক এমপি। কিন্তু মনোনয়ন যাচাই বাছাইয়ের সময় জানা গেলো নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে হলফনামা যিনি লিখেছেন সেই আইনজীবির নোটারি পাবলিকের লাইসেন্স মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে অনেক আগেই । আর এ কারণে প্রার্থীর মনোনয়নপত্রটি অবৈধ বলে ঘোষনা করা হলো।

রোববার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লার ১১ টি আসনের প্রার্থীদের মনোনয়ন যাচাই বাছাই করার সময় কুমিল্লা-৫ আসনের বিএনপির প্রার্থী সাবেক সাংসদ অধ্যক্ষ ইউনুসের হলফ নামা যাচাই বাছাইয়ের সময় জেলা রিটার্নিং অফিসার মো. আবুল ফজল মীর যখন গোয়েন্দা সংস্থা, আর্থিক প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্য বুড়িচং ব্রাহ্মণপাড়া -৫ আসনের বিএনপির প্রার্থী অধ্যক্ষ ইউনুসের বিষয়ে কারো কোন আপত্তি আছে কিনা তখন আওয়ামী লীগের প্রার্থী এড. আবদুল মতিন খসরুর আইনজীবী জেলা রিটার্নিং অফিসার আবুল ফজর মীরকে বলেন, স্যার, বিএনপির প্রার্থী যে আইনজীবির মাধ্যমে নোটারি করেছেন সে আইনজীবীর নোটারি পাবলিকের লাইসেন্স মেয়াদ উত্তীর্ণ। আর মেয়াদ উর্ত্তীণ লাইসেন্সধারী আইনজীবীর মাধ্যমে হলফনামা লেখা হলে প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল বলে বিবেচিত হয়।

এ সময় জেলা রিটার্নিং অফিসার আবুল ফজল মীর খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন ঘটনা সত্যি। আর এ কারণে বিএনপির প্রার্থী অধ্যক্ষ ইউনুসের মনোনয়নপত্রটি অবৈধ বলে ঘোষণ দেন।

এ বিষয়টি নিয়ে অধ্যক্ষ ইউনুস জানান, এ বিষয়টি তিনি জানতেন না। আত্মপক্ষ সমর্থন করে তিনি জানান,য আইনজীবীর নোটারি পাবলিক এর লাইসেন্স মেয়াদ উর্ত্তীণ হলে বিষয়টি আইনজীবীর উপর বর্তায়। এ জায়গায় আমার প্রার্থিতাকে বাদ দেয়া অনুচিত।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ