প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সম্মাননা ক্রেস্ট কিনতে সাড়ে নয় কোটি টাকা বরাদ্দ

ডেস্ক রিপোর্ট : মুক্তিযুদ্ধে নিহত ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর ১ হাজার ৭০০ সদস্যের পরিবারকে সম্মাননার জন্য ক্রেস্ট কিনতে প্রায় সাড়ে ৯ কোটি টাকার অনুমোদন দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। এ খাতে চলতি বাজেট থেকে প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যয় করা হবে। আর গত বাজেটে দেড় কোটি টাকা বরাদ্দ ছিল। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

জানতে চাইলে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান যুগান্তরকে বলেন, মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অনেক সৈন্য প্রাণ হারিয়েছে। প্রতিদান হিসেবে তাদের পরিবারকে রাষ্ট্রীয়ভাবে সম্মাননা জানানোর সিদ্ধান্ত অনেক আগে নেয়া হয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় সম্মাননা ক্রেস্ট কিনতে এ টাকা ব্যয়ের অনুমোদন দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

সূত্র জানায়, প্রতিটি ক্রেস্টের মূল্য ৪০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে ৬ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে। এছাড়া সার্টিফিকেট, সাইটেশন, ফোল্ডার ও ব্যাগ দেয়া হবে। এজন্য ১ কোটি ৯১ লাখ ৬০ হাজার ৭০০ টাকা ব্যয় করা হবে। এসব ক্রেস্ট পরমাণু শক্তি কমিশন থেকে টেস্টিং করা হবে।

এজন্য ৩৪ লাখ টাকা ব্যয় ধরা হয়। বিশেষ ব্যবস্থাপনায় এগুলো বিমানে করে ভারতে পাঠানো হবে। এ খাতে ৫ লাখ টাকা ব্যয় হবে। ক্রেস্টগুলো সংশ্লিষ্টদের হাতে পৌঁছে দিতে দেশ থেকে একটি প্রতিনিধি দল ভারতে যাবে। এক্ষেত্রে ২৫ লাখ টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে।

উল্লিখিত অর্থ বরাদ্দের অনুমোদনের জন্য সার-সংক্ষেপ অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের কাছে পাঠানো হয়। সেখানে বলা হয়, ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অনুকূলে পুরস্কার বাবদ ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ আছে।

কিন্তু এ বরাদ্দ দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে নিহত ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের পরিবারকে সম্মাননা দেয়া সম্ভব হবে না। তাদের জন্য ক্রেস্ট সংগ্রহ, টেস্টিং খরচ, পরিবহন ব্যয়, বিমানভাড়া, ভারতে পরিবহন ব্যয়, বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের ভারত সফর খরচ, প্যাকিং চার্জ ও আনুষঙ্গিক ব্যয় বাবদ ৯ কোটি ৪৪ লাখ ৬০ হাজার ৭০০ টাকা বরাদ্দ দেয়ার অনুরোধ করা হল।

সার-সংক্ষেপে আরও বলা হয়, মুক্তিযুদ্ধে নিহত ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনী সদস্যদের পরিবারকে সম্মাননা জানাতে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবের সভাপতিত্বে একটি বৈঠক হয়। সেখানে সম্মাননা ও রুপার ক্রেস্ট বাক্সসহ তিনটি ভাষায় (বাংলা, ইংরেজি ও হিন্দি) তৈরির সিদ্ধান্ত হয়। এ লক্ষ্যে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৯ কোটি ৪৪ লাখ ৬০ হাজার ৭০০ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়। এ কার্যক্রম গত অর্থবছরেই সম্পন্ন হবে বলে ধারণা করা হয়েছিল।

কিন্তু ক্রেস্ট বানাতে চারবার দরপত্র আহ্বান করেও প্রত্যাশিত প্রতিষ্ঠানের সন্ধান পাওয়া যায়নি। ফলে গত বছর এ বরাদ্দ অর্থ ব্যয় করা হয়নি। পরে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে ২৯ আগস্ট অর্থনৈতিক সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে ক্রেস্ট সংগ্রহের বিষয়টি উন্মুক্ত দরপত্রের পরিবর্তে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতি অনুসরণের প্রস্তাব নীতিগতভাবে অনুমোদন দেয়া হয়।

যেহেতু চলতি বাজেটে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ে পুরস্কার খাতে দেড় কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে বাকি ৭ কোটি ৯৪ লাখ ৬০ হাজার ৭০০ টাকা চলতি অর্থবছরের অপ্রত্যাশিত খাত থেকে ব্যয় করা যেতে পারে। বরাদ্দ প্রসঙ্গে অর্থ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা যুগান্তরকে বলেন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের চাহিদা অনুযায়ী অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। তার মতে, সম্মাননা দেয়ার জন্য অর্থ বরাদ্দ নিয়ে কোনো সমস্যা নেই।

জানা গেছে, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে গবেষক সাজ্জাদ জহিরের সংগ্রহ করা তথ্যমতে মুক্তিযুদ্ধে নিহত ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য সংখ্যা ১ হাজার ৯৮৪ জন। এর মধ্যে সেনাবাহিনীর সদস্য ১ হাজার ৭৬৯ জন, নৌ-বাহিনীর ২০৪ এবং বিমান বাহিনীর রয়েছে ১১ জন। সরকার এ তালিকা ধরে কাজ শুরু করেছে। এর মধ্যে ১ হাজার ৬৬৮ জনের তালিকা ভারতীয় হাইকমিশনের মাধ্যমে যাচাই-বাছাই শেষে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

সূত্র : যুগান্তর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ