প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চৌগাছায় কিশোরীকে তুলে নিয়ে বিয়ে অতঃপর যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন

জাহিদুল কবীর মিল্টন, যশোর: যশোরের চৌগাছায় সাথী খাতুন নামে এক বধূকে যৌতুকের দাবিতে মারপিট করেছে স্বামী। তাকে উদ্ধার করতে গেলে ওই গৃহবধূর মা মমতাজ বেগমকেও মারপিট করা হয়েছে। পরে চৌগাছা থানা পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। গুরুতর আহত সাথী খাতুনকে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্ত স্বামী নাজমুল চৌগাছা উপজেলার পুড়াপাড়া বাজার এলাকার কাউছার আলীর ছেলে।

এ ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় চৌগাছা থানায় অভিযোগ করেছেন সাথীর বাবা বজলুর রহমান। তাদের বাড়িও পুড়াপাড়া গ্রামে।

আহত সাথীর মা মমতাজ বেগম বলেন, স্থানীয় কাটগড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী সাথী খাতুনকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে তিন মাস আগে তুলে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করে কাউছার আলীর ছেলে নাজমুল। এরপর থেকেই নাজমুলের ঘনিষ্ঠ পুড়াপাড়া বাজারের চাতাল ব্যবসায়ী আব্দুল আলীম আমার স্বামীকে নানাভাবে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখায়। এমনকি আমাদের এলাকা ছেড়ে যাবার হুমকিও দেয় তারা। থানায় খবর দেয়া হলে বিকালে চৌগাছা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বিকাশ কুমার ও এসআই কুদ্দুস গিয়ে আমার মেয়েকে উদ্ধার করে। উদ্ধারের পর মেয়েকে চৌগাছা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার সাথীর বাবা বজলুর রহমান বলেন, মেয়েকে পুলিশ উদ্ধারের পর থেকেই নাজমুলের ঘনিষ্ঠ পুড়াপাড়া বাজারের চাতাল ব্যবসায়ী আব্দুল আলীম আমাকে নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে। এমনকি আমাদের এলাকা ছেড়ে দেয়ার হুমকিও দেয়া হচ্ছে।

এ ব্যাপারে চৌগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রিফাত খান রাজীব বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। প্রাথমিকভাবে নির্যাতনের প্রমাণও পাওয়া গেছে। মামলার আইনি প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। থানার এসআই বিকাশ কুমারকে অভিযোগ তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। অবশ্যই আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ