প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘সংঘর্ষের ঘটনায় ফৌজদারি মামলা হবে, ইজতেমার মাঠ থাকবে প্রশাসনের দখলে’

আল-আমিন ও রাশেদুল ইসলাম : আগামী এক মাস টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা মাঠ প্রশাসনের দখলে থাকবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। শনিবার বিকালে সচিবালয়ে বিবদমান তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষ নিয়ে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, দু’পক্ষের সংঘাতের কারণে আগামী এক মাস টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা মাঠ প্রশাসনের দখলে থাকবে। এই এক মাসের মধ্যে তাবলিগ জামাতের দুপক্ষ সেখানে কোনো ধরনের কর্মকাণ্ড করতে পারবে না। এ ছাড়া আজকের সংঘর্ষের ঘটনায় ফৌজদারি মামলা হবে। তদন্তসাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

এর আগে সকালে তাবলিগ জামাতের দুপক্ষের সংঘাতের পর তাদের নিয়ে বৈঠকে বসেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

টঙ্গীতে তাবলিগ জামাতের সংঘাতের পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বৈঠক

টঙ্গীতে তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের সংঘাতে একজন নিহত হওয়ার ঘটনার পর ‘বিদ্যমান সমস্যা সমাধানে’ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে শনিবার বিকেলে বৈঠক বসেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করছেন।

এর আগে শনিবার ভোর থেকে তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের মুখোমুখি অবস্থান পরে সংঘর্ষে রূপ নেয়। সংঘর্ষে ইসমাইল মণ্ডল (৬৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হন। সংঘর্ষে নিহত হওয়ার এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাজীপুর মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার আরিফ। তিনি জানান, নিহতের বাড়ি মুন্সিগঞ্জে।  আজ সকালে ছেলে জাহিদ হাসানের সঙ্গে তিনি টঙ্গী এসেছিলেন। টঙ্গীতে ইজতেমা ময়দানের ১ নম্বর প্রবেশ ফটকে দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও সংঘর্ষে ৫০ থেকে ৬০ জন আহত হন।

আজকের সংঘর্ষের পর উদ্ভূত পরিস্থিতেতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বৈঠক ডাকা হয়। বিকেল সাড়ে চারটার দিকে এ বৈঠক শুরু হয়। এখানে পুলিশের মহাপরিদর্শক জাবেদ পাটোয়ারীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং তাবলিগের দুই পক্ষের মুরব্বিরা উপস্থিত আছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কামারপাড়া থেকে একদল মুসল্লি লাঠিসোঁটা হাতে ইজতেমা ময়দানের ১ নম্বর প্রবেশদ্বারে প্রতিপক্ষের অনুসারীদের ওপর হামলা চালান। মুহূর্তের মধ্যে স্থানটি রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। আধা ঘণ্টা পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও সংঘর্ষ চলার পর পুলিশের হস্তক্ষেপে তা নিয়ন্ত্রণে আসে।

দুই পক্ষের বিরোধিতার কারণে আসছে বছরের বিশ্ব ইজতেমা স্থগিত ঘোষণা করে সরকার। ১৫ নভেম্বর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় তাবলিগ জামাতের বিবদমান দুই পক্ষ ছাড়াও পুলিশের আইজি, ধর্মসচিবসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। আগামী জানুয়ারিতে বিশ্ব ইজতেমা হওয়ার কথা ছিল। সূত্র: সময় টিভি ও প্রথম আলো

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ