প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

টঙ্গীতে তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের সংঘর্ষ, নিহত ১

আমিন মুনশি : বিশ্ব ইজতেমায় আধিপত্য নিয়ে সংঘর্ষে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তির নাম ইসমাইল মন্ডল (৬৫)। বাড়ি মুন্সিগঞ্জে। আজ শনিবার সকালে ছেলে জাহিদ হাসানের সঙ্গে তিনি টঙ্গী এসেছিলেন। শনিবার ভোর থেকে তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের মুখোমুখি অবস্থান পরে সংঘর্ষে রূপ নেয়। টঙ্গীতে ইজতেমা ময়দানের ১ নম্বর প্রবেশফটকে দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও সংঘর্ষে ৫০ থেকে ৬০ জন আহত হন।

সংঘর্ষে নিহত হওয়ার এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাজীপুর মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার আরিফ।

নিহত ইসমাইলের ছেলে জাহিদ হাসান বলেন, তাঁর বাবা আলুর ব্যবসা করতেন। জাহিদ হাসানের সঙ্গে আজ সকালে তিনি টঙ্গী আসেন। তাঁর বাবা সাদপন্থী। সাদবিরোধীরা মাঠে অবস্থান করছিলেন। এ সময় সাদপন্থীরা মাঠে ঢোকার চেষ্টা করছিলেন। ধাক্কাধাক্কির সময় তাঁর বাবা সামনে ছিলেন। তাঁর মাথায় আঘাত লেগেছিল। সাদবিরোধীরা ধারালো কিছু দিয়ে আঘাত করেন তাঁকে।

এদিকে, টঙ্গীর ইজতেমা মাঠ আধা ঘণ্টার মধ্যে খালি করা হবে বলে জানিয়েছে র‌্যাব। এছাড়া ইজতেমা মাঠে কাউকে অবস্থান করতে দেয়া হবে না বলেও জানানো হয়েছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী এ বাহিনীর পক্ষ থেকে।

এর আগে সকাল ১১ টার দিকে ইজতেমা মাঠের গেট ভেঙে প্রবেশ করে মাওলানা সাদ অনুসারীরা। এ সময় তারা ছাত্রদের মারধরও করে। এতে কমপক্ষে শতাধিক আহত হয় বলে জানা যায়। আহতদের নিকটস্ত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

উভয়পক্ষকে মাঠ ছাড়ার অনুরোধ প্রশাসনের, বিকেলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে বৈঠক

টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমা মাঠে সঙ্কট নিরসন ও সংঘর্ষ থামাতে মাঠে অবস্থানরত তাবলীগের সকল সাথী, মাওলানা সাদের অনুসারী ও মাদরাসা শিক্ষার্থীদের মাঠ ছাড়ার অনুরোধ জানিয়েছে প্রশাসন। পুলিশের এডিশনাল ডিআইজি মনিরুজ্জামান এই মহুর্তে মাঠে অবস্থানরত উভয়পক্ষকে নিরাপদে ফিরে যাওয়ার অনুরোধ করেন। তিনি জানান, জোড় ও ইজতেমা যথা সময়ে হবে কিনা এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে বিকাল ৩ টায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

সেখান থেকে সিদ্ধান্ত হবে জোড় ও ইজতেমার ব্যাপারে। এবং বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়া হবে। জানা যায়, বৈঠকে তাবলীগ জামাতের দুই পক্ষ ও আলেম উপদেষ্টাদের অনেকেই অংশগ্রহণ করবেন। বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। এছাড়াও প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ সেখানে উপস্থিত থাকবেন।

উল্লেখ্য, এর আগে সকাল ১১ টার দিকে ইজতেমা মাঠের গেট ভেঙে প্রবেশ করে মাওলানা সাদ অনুসারীরা। এ সময় তারা ছাত্রদের মারধরও করে। এতে কমপক্ষে শতাধিক আহত হয় বলে জানা যায়। আহতদের নিকটস্ত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ