প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নিরাপত্তা নিশ্চিতে ৫ দফা দাবি মাইনরিটি রাইটস ফোরামের

ইউসুফ আলী বাচ্চু : জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ও পরবর্তীতে বাংলাদেশের সকল জাতিগত ও ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের জীবনমান, অধিকার, নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণসহ সামাজিক, রাজনৈতিক ক্ষেত্রে সমঅধিকার প্রতিষ্ঠায় ৫ দফা দাবি জানিয়েছে মাইনরিটি রাইটস ফোরাম বাংলাদেশ।গতকাল শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত গোলটেবিল বৈঠক থেকে এ দাবি জানানো হয়।

ঢাবির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাসরিন আহমাদ বলেন, ক্ষোভ হতাশা থেকে অনেকেই এখানে অনেক কথা বলেছেন, যা যথার্থ। সংখ্যালঘু কিংবা সংখ্যাগরিষ্ঠ সকলেরই ক্ষোভ ও হতাশা রয়েছে। স্বাধীনতা যুদ্ধে ৪টি উদ্দেশ্যের মধ্যে একটি উদ্দেশ্য ছিল অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রগঠন করা হবে। সেখানে কোনো বঞ্চনা থাকবে না। কিন্তু সেটা হয়নি। বরং পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধুর গোটা পরিবারকে হত্যার পর থেকে মাইনরিটিদের অবস্থা খারাপ হতে থাকে। এখনো এই দেশেই আমরা সংখ্যালঘু নির্যাতন, জমি দখল, পূজার মূর্তি, ম-প ভাংচুরের খবর পাচ্ছি। আমরা ধর্মকে রাজনীতির বিশেষ হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করার কারণে এটা বন্ধ হচ্ছে না।

আদিবাসী যুব পরিষদের সভাপতি হরেন্দ্র নাথ সিং বলেন, রাষ্ট্র অন্ধ ও সাম্প্রদায়িক হয়ে যাচ্ছে। আর এটা করার ক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই বর্তমান সরকারও। গত ২/৩ মাস আগে সরকার পরিপত্র জারি করেছে আদিবাসী বলা যাবে না।

বিভিন্ন জেলার হিন্দু ও অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের আলোচকরা বলেন, নির্বাচন আসলে প্রার্থীরা অনেক প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু নির্বাচন পরবর্তিতে তার প্রতিফলন দেখা যায় না। কি নৌকা আর কি ধানের শীষ। যেখানেই ভোট দেই না কেন ভাগ্যের পরিবর্তন হয় না।
পাঁচদফা দাবি-

বিচারবিভাগীয় ক্ষমতা সম্পন্ন মাইনরিটি কমিশন গঠন,সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় গঠন, জাতীয় সংসদসহ সকল নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানে সংখ্যালঘুদের জন্য ১৫শতাংশ ও অনগ্রসর শ্রেনীর জনগোষ্ঠীর জন্য ৮ শতাংশ আসন সংরক্ষণ, হিন্দু ফাউন্ডেশন, বৌদ্ধ ফাউন্ডেশন, খ্রিস্টান ফাউন্ডেশন গঠন। আদিবাসীদের (সমতল ও পাহাড়ী) জন্য ভূমি কমিশন গঠন করে ভূমি অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। আদিবাসীদের ভাষা ও সংস্কৃতি বিকাশের জন্য প্রয়োজনীয় বাজেট বরাদ্দ দিতে হবে। চা-শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি ১০২ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০০ টাকা করতে হবে। সংবিধানের ২৯(৩) (ক) অনুচ্ছেদের আলোকে সংখ্যালঘুর অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর ছাত্রছাত্রীদের প্রতি বছর ৫ কোটি টাকার উপবৃত্তি প্রদান। সংখ্যালঘুর অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর (দলিল) জন্য ৮ শতাংশ ভাগ আসন সংরক্ষণ। অর্পিত সম্পত্তি প্র্যর্পণ আইনের জটিলতা নিরসন করে মালিক বা উত্তরাধিকারসূত্রে সহ-অংশীদারদের নিকট সম্পত্তি ফেরত প্রদান করাসহ এর দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হবে।

আয়োজক সংগঠনের চেয়ারম্যান মানস কুমার মিত্রের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, শ্রী পংকজ ভট্টাচার্য, প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. অসীম কুমার, আইনজীবি মনজিল মোরশেদ প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ