প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

লেন ব্যবহারের আইন আছে প্রয়োগ নেই, চালকের ইচ্ছায় চলে গাড়ি

ইসমাঈল হোসেন ইমু : যানবাহন চলাচলে লেন ব্যবহারের জন্য আইন আছে, প্রয়োগ নেই। সড়ক বা মহাসড়কে লেন ব্যবহারের পদ্ধতি কেউই মানে না। যে কারণে এর সুফলও মেলে না। ট্রাফিক পুলিশ যানবাহন নিয়ন্ত্রণ ও আইন অমান্যকারি চালকের বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করলেও লেন পদ্ধতি না মানায় কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করে না। এতে চালকেরা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠছে।

মহাসড়কতো দূরে থাক, রাজধানীর সড়কগুলোতেও দেখা যায়, বড় ট্রাক আর অটোরিকশা একযোগেই চলতে থাকে। অনেক সময় দ্রুতগামী প্রাইভেটকার বা মাইক্রোবাস চালকরা পড়েন বিপাকে। পাশাপাশি মোটরবাইক চালকরা দুর্ঘটনার শিকার হন। এ অবস্থা দীর্ঘদিন ধরে চললেও ডিএমপি’র ট্রাফিক বিভাগ বা হাইওয়ে পুলিশকে তেমন কোনো উদ্যোগ নিতে দেখা যায় না।

২০০৯ সালের ১ ডিসেম্বর থেকে রাজধানীতে লেন পদ্ধতি মেনে চলার জন্য পুলিশ প্রচারকার্য শুরু করে। নিয়ম অনুযায়ী, রাস্তার ডান পাশে থাকবে প্রথম লেন। মাঝখানে দ্বিতীয় আর বাম পাশে থাকবে তৃতীয় লেন। প্রথম লেনে কার, মাইক্রোবাস, জিপ ও ভিআইপিদের গাড়ি চলবে। যেসব গাড়ি সামনে গিয়ে ডানে মোড় নেবে সেগুলো এই লেনে থাকবে। মাঝখানের দ্বিতীয় লেনে চলবে বাস, ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান। তৃতীয় লেনে অটো রিকশা, হিউম্যান হলার ও টেম্পো চলবে। যেসব গাড়ি সামনের ক্রসিংয়ে বাঁয়ে মোড় নেবে সেগুলো এই লেনে থাকবে। লেনে চলার সময় ওভারটেক করা নিষেধ। যত্রতত্র ইচ্ছামতো লেন পরিবর্তন করা যাবে না। সামনের ক্রসিংয়ে বাঁয়ে বা ডানে মোড় নিতে হলে গাড়িটিকে আগেই বাঁয়ের বা ডানের লেন ধরে চলতে হবে। আর ক্রসিংয়ে বাঁয়ের বা ডানের লেন বন্ধ করে রাখা যাবে না বলে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়। প্রচারকার্য চালানোর কয়েকদিন লেন মেনে যানবাহন চললে যানজটের অনেক উন্নতির পাশাপাশি দুর্ঘটনার হারও কমেছিল। কয়েকদিন এভাবে চলার পর সেই নিয়ম শুধু কাগজে-কলমেই রয়ে গেছে। এখন আর এ নিয়ম কেউ মানে না।

ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগ সূত্র জানিয়েছে, লেন পদ্ধতির কথা বলা হয়েছে ঠিকই। কিন্তু রাজধানীতে এত বেশি পরিমান যানবাহন চলাচল করে এগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে হিমশিম খায় পুলিশ। এরপরেও বড় যানবাহনগুলো রাস্তার ডানপাশ থেকে চলতে বলা হয়। তবে না মানলে ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়না। সম্পাদনা : হুমায়ুন খোকন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ