প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আ.লীগের কাছে স্বচ্ছতা প্রত্যাশা করি : ড. মীজানুর রহমান

হ্যাপি আক্তার : জনন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেছেন, ১৫১টি আসনে জয় এখন বিষয়টি মূল বিবেচ্য। আরটিভির ‘গোলটেবিল’ টকশোতে তিনি বলেন, মনোনয়নে সবাই ম্যাজিক নম্বর খুঁজছে। ভারত অথবা অন্যান্য যে পুরনো পার্লামেন্ট ফর্ম গর্ভমেন্ট আছে, সেখানে একটি নির্বাচন থেকে আরেকটি নির্বাচন একেবারে ওলটপালট হয় না। ২০% এর বেশি নতুন প্রার্থী ভারতেও আসে না । সেদিক থেকে হিসাব করলে আওয়ামী লীগ ২৩০ জনের মধ্যে প্রায় ৪৫ জন নতুন প্রার্থী এনেছে। অন্যান্য দেশের পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি মানানসই।

মীজানুর রহমান বলেন, বিতর্কিত আলোচিত মাদক ব্যবসায়ী ছাড়াও দ-প্রাপ্ত যারা, তারাও নির্বাচন করছে। যারা যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত তাদের আত্মীয়-স্বজনরাও নির্বাচন করছে। মানি লন্ডারিং ও মানুষ হত্যা মামলায় উচ্চতর আদালতে যার বিরুদ্দে রায় হয়ে গেছে সে তো সব নমিনেশন দিচ্ছে। যে লোকটি সর্বোচ্চ আদালত কর্তৃক দ-িত সেই লোকটি সবগুলো প্রার্থী নির্ধারণ করছে। দ-িত লোকরাও মনোনয়ন পাচ্ছে।

আসন্ন নির্বাচনটি অংশগ্রহণমূলক হওয়া দরকার বলে উল্লেখ করে মীজানুর রহমান বলেন, ইতোমধ্যেই সকল রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের দিকে এগুচ্ছে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। কারণ যে কয়টি রাজনৈতিক দল আছে তারা সর্বোচ্চ নম্বর নিয়ে এগুচ্ছে। আর নির্বাচন কমিশনের আইন ও বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে। তবে মূল কথা হচ্ছে নির্বাচন কমিশন খুব শক্তিমান। আর তা হচ্ছে নির্বাচনের দিন পর্যন্ত।

তিনি বলেন, সুশীল সমাজ বা পত্র-পত্রিকায়া যে বিষয়টি বলা হচ্ছে, আওয়ামী লীগ থেকে আমরা বেশি প্রত্যাশা করি। তার জন্য আওয়ামী লীগকে খুব স্বচ্ছ হতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ