প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নেইমারের জাদুতে প্যারিসে আলো, লিভারপুলে আতঙ্ক

স্পোর্টস ডেস্ক: এই দিনটার অপেক্ষাতেই ছিলেন প্যারিস সাঁ জারমাঁর ভক্তরা। রেকর্ড অর্থে তাদের ক্লাবে আসা নেমার কবে মহাতারকার মতো উজ্জ্বল হয়ে উঠবেন!

চোট-আঘাত, ব্যক্তিত্ব সংঘাত এবং নানা বির্তকের পরে অবশেষে সেই মুহূর্ত উপস্থিত হল বুধবার রাতে। যখন লিয়োনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো মতো নিজের রংয়ে তার দলকে আলোকিত করে তুললেন নেইমার। গত বারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ রানার্স লিভারপুলকে ২-১ গোলে হারাল পিএসজি। জয়সূচক গোলটি নেইমারের। এমন একটা ম্যাচে তিনি জ্বলে উঠলেন, যখন দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গিয়েছিল পিএসজি-র। হারলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে ছিটকে যাওয়ার আতঙ্ক তাড়া করতে পারত।

গোলটা এল তারই শুরু করা আক্রমণ থেকে। সেই বিদ্যুৎ গতি। এবং তেমনই অভিনব বিজয়োৎসব। কর্নার ফ্ল্যাগের কাছে গিয়ে নেইমার এবং কিলিয়ান এমবাপে নেচে গোলের উৎসব সারলেন। এর পর ড্রেসিংরুমে তাঁর নাচের ভিডিয়োও ভাইরাল হয়ে যায়। যথারীতি ‘শোম্যান’ আখ্যাকে বজার রেখে ক্যামেরার জন্য নানা পোজও দিয়ে গেলেন ব্রাজিলীয় তারকা। শুধু নিজের গোলেই উৎসব করা নয়, খুয়ান বার্নাতের প্রথম গোলের পরেও চ্যালেঞ্জের ভঙ্গি করে ঘরের মাঠের দর্শকদের চাঙ্গা করে দিলেন তিনি। ম্যাচে বহুবার তাকে নীচে নেমে এসে ডিফেন্ডারদের সাহায্য করতেও দেখা গেল। লিভারপুল ম্যানেজার য়ুর্গেন ক্লপকেও রাগিয়ে তুললেন। ম্যাচের পরে ক্লপ ফের অভিযোগ করে গেলেন তার কুখ্যাত নাটক করা নিয়ে। ক্লপের মতে, নাটক করে বেশ কিছু ফাউল আদায় করেছেন তিনি। লিভারপুলের গোলটি পেনাল্টি থেকে করেন জেমস মিলনার।

জয়ের আনন্দে আত্মহারা নেমার বলে ফেলেছেন, ‘‘আমাদের জন্য হয় এসপার-নয় ওসপার পরিস্থিতি ছিল। আমাদের লড়াই করতে হয়েছে কিন্তু শেষ পর্যন্ত যে জিতেছি, সেটাই আনন্দের। সেই কারণেই এই জয়ের উৎসব করা দরকার।’’ সেই উৎসব করতে গিয়ে বিতর্কেও জড়িয়েছেন তিনি। গোলের পরে তিনি এবং এমবাপে টাকা ছড়ানোর ভঙ্গি করতে করতে নাচেন। কারও কারও মনে হয়েছে, রেকর্ড অর্থে পিএসজিতে যোগ দেওয়া নেমাররা বোঝাতে চেয়েছেন, টাকার জোর কতটা! এর পর ম্যাচের শেষে লিভারপুলের গোলকিপার অ্যালিসনের সঙ্গে জার্সি বিনিময় করে সেই জার্সি পরে বিজয়োৎসবে মাতেন। অ্যালিসন ব্রাজিল দলে নেমারের সতীর্থ।

অন্য দিকে, চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গত বারের রানার্স য়ুর্গেন ক্লপের দল শেষ ষোলোয় যেতে পারে কি না সেটাই বড় প্রশ্ন। নাপোলিও রেড স্টার বেলগ্রেডকে ৩-১ হারিয়ে দেওয়ায় লিভারড়–লের ভবিষ্যৎ আরও অনিশ্চিত হয়ে উঠেছে। এই মুহূর্তে গ্রুপ ‘সি’-তে নাপোলি ৫ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে। পিএসজি-র রয়েছে ৫ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট। লিভারপুলের ৫ ম্যাচ থেকে ৬ পয়েন্ট। রেড স্টার বেলগ্রেডের ৫ ম্যাচ থেকে ৪ পয়েন্ট। লিভারপুলের ম্যাচ বাকি নাপোলির সঙ্গে। পিএসিজ-র শেষ ম্যাচ রেড স্টারের বিরুদ্ধে। নাপোলিকে ১-০ অথবা দু’গোলের ব্যবধানে হারালে লিভারপুল নক-আউটে যেতে পারে। আর নয়তো প্রার্থনা করতে হবে নেমারদের বিরুদ্ধে রেড স্টার যেন কোনও অঘটন ঘটিয়ে দেয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত