প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফুটবলার ও ব্যবসায়ী পরিচয়ে দেশে এসে প্রতারণা করতেন তারা!

সুজন কৈরী : রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা ও খিলক্ষেত থেকে আন্তর্জাতিক অনলাইন প্রতারক চক্রের ১৪ বিদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১। তারা হলো- নাইজেরিয়ার ইজিকুকওয়া (৩২), ওনকুওরা চুকুনোস (২২), অলুবোওয়াল (২৭), প্রমিস ওনিইনিচেকউকওয়া ইকবোয়াকাবা (২৯), নেইগোনু আমাদি (২৮) ডোনেটস (৩৪), ক্রিস্টিওয়া এনওয়ালুদু (৩৪), উগান্ডার মুকি মাইকেল (৩৮), পেট্রিক এমবাজারিয়া (৩২), তানজানিয়ার ক্যাটেরুয়া এমলাভস, সারমেন্টো রেবেকা, ক্যামেরুনের দিদি ন্যায়া (৪৬), কংগোর ইলুংগা ক্রিটিয়ান এবং লাইবেরিয়ার জিওর্যাগ ম্যাথিউ (৩৮)। বুধবার দিবাগত রাতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে ২৯টি মোবাইল ফোনসেট, ২টি ল্যাপটপ, নগদ ১ লাখ ৫৮৫ টাকা, ১ হাজার ১৩ ডলার ও বিভিন্ন ব্যাংকের কয়েকটি চেক উদ্ধার করা হয়।

র‍্যাব জানায়, তারা মূলত খেলোয়াড় ও ব্যবসায়ী পরিচয়ে বাংলাদেশে আসার পর ১০ থেকে ১২ জন মিলে প্রতারণা চক্র গড়ে তোলে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে আসছেন। তারা ভিসার মেয়াদ শেষ হলেও বাংলাদেশেই অবস্থান করছেন। আর এদের সহায়তার জন্য বাংলাদেশী কিছু নাগরিক জড়িত। বিদেশি এ প্রতারক চক্রের কাজ হলো ব্যাংকের এ্যাকাউন্ট নম্বর সংগ্রহ করে নিজেকে কাস্টম অফিসার বা কাস্টমসে কর্মরত পরিচয় দিয়ে ভুক্তভোগীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা। এই চক্রের মূল হোতা মার্ক নামের নাইজেরিয়ান এক নাগরিক।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর কাওরান বাজারে র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক (সিও) লেফট্যানেন্ট কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেম বলেন, ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুয়া আইডি খোলে তারা নিজেদের আফগানিস্তানে যুদ্ধরত সৈনিক বা জাতিসংঘের কর্মকর্তা হিসেবে পরিচয় দিয়ে এদেশের অনেকের সঙ্গে বন্ধুত্ব গড়ে তোলে। একপর্যায়ে বন্ধুর জন্য দামী উপহার পাঠাবে বলে জানায়। কয়েকদিন পর চক্রেরই বাংলাদেশি সদস্যরা ভুক্তভোগী ব্যক্তিকে ফোন দিয়ে কাস্টমস বা ডাক বিভাগের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে কথা বলে। ট্যাক্স ফি বা অবৈধ জিনিসের কথা বলে উপহার ছাড়ানোর জন্য বলে। এক পর্যায়ে তাদের ফাঁদে ফেলে হাতিয়ে নেয় বিপুল পরিমাণ অর্থ।